নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুমে বিজিবি-বিজিপি’র বৈঠক

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম সীমান্তে বাংলাদেশ সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন (বিজিবি) ও মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিপি (বিজিপি) এর মধ্যে রিজিয়ন পর্যায়ে সৌজন্য বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মিয়ানমার বিজিপি’র ১১ সদস্যের প্রতিনিধিত্ব করেন রিজিয়ন কমান্ডার চে নাইং উ। এদিকে বাংলাদেশের পক্ষে নেতৃত্ব দেন বিজিবি’র কক্সবাজারস্থ সদর দপ্তর রিজিয়নের (অপারেশন অফিসার) লেঃ কর্ণেল সরকার মাহমুদ মোস্তাফিজুর রহমান ।

আজ বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ঘুমধুম সীমান্তের নোয়াপাড়া মৈত্রী ব্রীজ সংলগ্নে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৈঠক শেষে বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন (বিজিবি)’ এর পক্ষে প্রেস ব্রিফিংয়ে বৈঠকের বিস্তারিত তুলে ধরেন বিজিবি’র কক্সবাজারস্থ সদর দপ্তর রিজিয়নের (অপারেশন অফিসার) লেঃ কর্ণেল সরকার মাহমুদ মোস্তাফিজুর রহমান।

এসময় ৩৪ বিজিবি’র অধিনায়ক আলী হায়দার আজাদ আহমদ, নাইক্ষ্যংছড়িস্থ ১১ বিজিবি’র অধিনায়ক শাহ আবদুল আজিজ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে কক্সবাজারস্থ সদর দপ্তর রিজিয়নের (অপারেশন অফিসার) লেঃ কর্ণেল সরকার মাহমুদ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, বাংলাদেশ- মিয়ানমার বন্ধুত্বপূর্ণ দেশ। উভয় দেশের সীমান্ত সুরক্ষায় সৌহার্দ্যপূর্ণ আলোচনার মাধ্যমে সীমান্তের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। সীমান্তে অনাকাঙ্খিত ঘটনা এড়াতে উভয় দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী সজাগ থাকাবে। আগের মত বিওপি থেকে ব্যাটালিয়ন পর্যায়ে সৌজন্য বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে বলে উভয় দেশের প্রতিনিধিদল এক মত পোষণ করেন।

তিনি আরো জানান, দুই দেশের মধ্যে বৈঠকটি ৩ মাস পর পর হয়। করোনার কারণে এবারের বৈঠক বিলম্বিত হয়েছে । বৈঠকে সীমান্ত সুরক্ষায় মিয়ানমার সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর সাথে যৌথ টহল পুনরায় শুরু করার জন্য একমত পোষণ করা হয় ।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।