নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউপি নির্বাচনে নৌকার জোয়ার !

তসলিম ইকবাল চৌধুরী
তসলিম ইকবাল চৌধুরী
বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউপি নির্বাচনে লড়াই কেবল আওয়ামীলীগ আর বিএনপি’র দুই প্রার্থী তসলিম ইকবাল চৌধুরী ও নুরুল আলম কোম্পানি’র মধ্যে। শুরুতে যতটা উৎসাহ উদ্দিপনা ছিল ততটুকু শেষ সময়ের প্রচারণায় দেখা যাচ্ছে না। তবে আওয়ামীলীগ প্রার্থী মাঠ গরম রাখলেও শেষ সময়ে এসে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী’র লোকজন হতাশা আর প্রচার বিমুখ হয়ে পড়েছে।
রোববার চাকঢালা নির্বাচনী জনসভায় বিএনপি প্রার্থী নুরুল আলম কোং তার বক্তব্যে বলেন, মানুষ ঘর থেকে বের হচ্ছে না নির্বাচনে আগের মত আনন্দ নিয়ে রাস্তায় নামছে না। আওয়ামীলীগের লোকজন ভয় ভীতি দেখিয়ে মানুষের মুখ বন্ধ করে দিয়েছে, এই এলাকা বিএনপির ঘাঁটি অতছ কেহ আমার ধানের শীষে ভোট দিবে একথা বলার সাহস পাচ্ছে না, কারচুপি করে ভোট কেন্দ্র দখল করতে চেষ্টা করছে।
নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা যুবদল নেতা মালেক জানিয়েছেন, এবারে বিএনপি প্রার্থী নুরুল আলম কোম্পানি’র নির্বাচন করার কোন ইচ্ছে ছিল না। দল অনেকটা চাপ প্রয়োগ করে দাড় করিয়ে দিয়েছে, প্রার্থী নির্ধারন করতে বিএনপির ভুল হওয়ার কারনে স্থানীয় প্রার্থীর পক্ষে লোক সমাগম হচ্ছে কিন্তু বিএনপি প্রার্থী সাড়া পাচ্ছে না।
সোমবার ০১ নং ওয়ার্ডে আওয়ামীলীগ প্রার্থীর মহিলা সমাবেশে বক্তব্যে তসলিম ইকবাল চৌধুরী বলেন, মানুষ আপনাদের থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে বলে রাস্তায় আসছে না, পছন্দ করছে না বলেই মুখ খুলছে না ধানের শীষে ভোট দেবে। আর যদি আওয়ামীলীগ এর কোন কর্মি ভয়ভীতি প্রদর্শন করে তবে তার নাম বলুন প্রমান দিন।
তবে সাধারন ভোটার বলছে, বিএনপি প্রার্থী নির্বাচনে ভুল হওয়া আর আওয়ামীলীগ এর প্রার্থী স্থানীয় তরুন প্রজন্মের হওয়ায় মানুষ নৌকার দিকে ঝুঁকে পড়েছে। বিএনপির সাচিং প্রু জেরী ও ম্যাম্যচিং গ্রুপ পরস্পর অবিশ্বাস ও ক্রমে দুরত্ব বেড়ে যাওয়ার কারনে মাঠ পর্যায়ে ঝিমিয়ে পড়েছে। অন্যদিকে আওয়ামীলীগ এর বিরোধ প্রাকাশ্যে না হলেও একটি চক্র গোপন ষড়যন্ত্র করছে বলে দলীয় সুত্রে যানা গেছে।
আওয়ামীলীগ সদস্য সচিব ইমরান মেম্বার বলেন, মানুষ নৌকাকে সার্বজনীন ভাবে গ্রহন করেছে তাই নির্বাচনে বিজয়ে আশাবাদী আমরা। তবে স্থানীয়রা মনে করছে, আগামী ৩১ অক্টোবর ভোট গ্রহনের দিন, সময়েই বলে দিবে কে হচ্ছেন নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউপি চেয়ারম্যান।
নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা অরুন উদয় ত্রিপুরা বলেন, এধরনের কোন অভিযোগ কোন প্রার্থী এখনো আমাকে করেনি, কোথাও ভয় ভিতি প্রদর্শন বা অপ্রীতিকর কিছু হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে এখনো সৌহাদ্য সম্পর্ক বজায় রয়েছে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।