নারী ঘটিত কারণে আলীকদম উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি ওমর ফারুক চট্টগ্রামে খুন !

আলীকদম উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি, আইনজীবি ওমর ফারুক বাপ্পী
হাত-পা বাঁধা ও মুখে কসটেপ লাগানো, পুরুষাঙ্গ কাটা অবস্থায় ওমর ফারুক বাপ্পী (৪০) নামের এক আইনজীবির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার সকালে চট্টগ্রামের চকবাজার থানার কে বি আমান আলী রোডে বড় মিয়া মসজিদের সামনে একটি ভবনের নিচতলার বাসা থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। তিনি আলীকদম উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি, বান্দরবান জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য ও চট্টগ্রাম বারের সদস্য ছিলেন।
চক বাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নুরুল হুদা বাড়ির মালিকের বরাত দিয়ে সাংবাদিকদের বলেন, গত বৃহস্পতিবার এক নারী বাসাটি ভাড়া নিয়ে সেখানে উঠেন। তার নাম-ঠিকানা বাড়ির মালিক রাখেননি। শুক্রবার দিবাগত রাতে এই আইনজীবিকে ওই বাড়িতে ঢুকতে দেখেন দারোয়ান। পরে শনিবার ভোরে দারোয়ান দেখতে পান, বাসার দরজা খোলা। ভেতরে গিয়ে একটি লাশ পড়ে থাকতে দেখেন তিনি। হাত-পা বাঁধা, মুখ টেপ দিয়ে মোড়ানো ও পুরুষাঙ্গ কাটা অবস্থায় লাশটি পড়ে আছে। মরদেহ উদ্ধারের সময় ওই বাসায় আর কাউকে পাওয়া যায়নি। নারীঘটিত কোন আক্রোশ থেকে বাপ্পী খুনের শিকার হতে পারেন বলেও জানান তিনি। ওমর ফারুক বান্দরবানের আলীকদম উপজেলার সদর ইউনিয়নের চৌমুহনী এলাকার বাসিন্দা আলী আহমদের ছেলে।
চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবি সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবু হানিফ বলেন, বাপ্পী চট্টগ্রাম আদালতে আইন পেশায় ছিলেন, ২০১৩ সালে তিনি বারে অন্তর্ভুক্ত হন।
অপর একটি সূত্র জানান, আইনজীবী বাপ্পীর মক্কেল এক ইয়াবা বিক্রেতা বর্তমানে কারাগারে আছেন। মামলা পরিচালনার সূত্রে ওই ইয়াবা বিক্রেতার স্ত্রীর সঙ্গে বাপ্পীর যোগাযোগ হয়েছিল। যে নারী বাসা ভাড়া নিয়েছিলেন তিনি ওই ইয়াবা বিক্রেতার স্ত্রী বলে ধারণা করছে পুলিশ।
এদিকে আলীকদম থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মো. আজমগীর বিভিন্ন মাধ্যমে আইনজীবি বাপ্পীর লাশ উদ্ধারের ঘটনা শুনেছেন বলে জানান।

আরও পড়ুন
1 মন্তব্য
  1. Hasmin Ullah Hasan বলেছেন

    Monirul

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।