নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুতের দাবিতে রাস্তায় নেমেছে বাঘাইছড়ির মানুষ

রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলাতে বিদ্যুৎ ঘাটতি না থাকলেও প্রতিদিন প্রায় ঘন্টার পর ঘন্টা বিদ্যুৎবিহীন থাকতে হচ্ছে বাঘাইছড়ির মানুষদের। তাই বিদ্যুতের এরকম লুকোচুরি খেলায় জনদূর্ভোগ বৃদ্ধি পাওয়ায়, নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুতের দাবিতে ও ঘন ঘন লোডশেডিংয়ের প্রতিবাদ জানিয়ে মানববন্ধন কর্মসূচি ও বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় বরাবর বাঘাইছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম এর মাধ্যমে স্মারকলিপি প্রদান করে বাঘাইছড়ি উপজেলার সর্বস্তরের জনসাধারণ।

আজ রবিবার সকাল ১০ ঘটিকায় উপজেলা পরিষদ এর সামনে বাঘাইছড়ি উপজেলার সর্বস্তরের সাধারণ ভুক্তভোগীদের আয়োজনে ঘণ্টার পর ঘণ্টা লোডশেডিং ও সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার প্রতিবাদ এবং নিরবিচ্ছন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি ও উপজেলা নির্বাহী অফিসের মাধ্যমে বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছেন।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, আমরা বাঘাইছড়ির দেড় লক্ষ জনসাধারণ মারিশ্যা বিদ্যুৎ অফিসের কাছে জিম্মি হয়ে আছি। বিদ্যুৎ অফিসের কর্মকর্তা কর্মচারীর একগুয়েমির আচরণে বিদ্যুতের ঘন ঘন লোডশেডিংয়ে অতিষ্ঠ, দিনের ৮ থেকে ১০ ঘন্টা বিদ্যুৎ থাকে না, আর রাতের কথা নাই বলি, আমরা এর থেকে পরিত্রাণ চাই।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, আকাশে মেঘ করলে লোডশেডিং, বৃষ্টির দোহায় দিয়েই বৃষ্টির সময় বিদ্যুৎ নেই, আবার দিনের বেলায় গাছ কাটার নাম করে বিদ্যুৎ বন্ধ, যেদিন সব কিছু ভালো থাকে সে দিন প্রতি ঘন্টায় একবার হলেও লোডশেডিং দিতে হয় কেন। এর জন্য মারিশ্যা বিদ্যুৎ অফিসের কর্মকর্তাদের কাজের অবহেলাকে দায়ী করে, মারিশ্যা বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের আবাসিক প্রকৌশলী (আর-ই)র অপসারণ দাবি করে ভুক্তভোগীরা।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সাম্প্রতিক বাঘাইছড়িতে ভয়াবহ বিদ্যুৎ বিপর্যয়ের কারণে জনজীবন অতিষ্ট হয়ে উঠেছে। এ থেকে পরিত্রাণ পেতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করি, এর পরও বিদ্যুৎ পরিস্থিতি সহনীয় পর্যায়ে না এলে আমরা কঠোর আন্দোলনের ডাক দিতে বাধ্য হবো।

মারিশ্যা বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের আবাসিক প্রকৌশলী (আর ই) সুগত চাকমা বলেন, আমরা যে পরিমান বিদ্যুৎ নিয়ে আসি মাস শেষে সে পরিমান বিদ্যুৎ বিল দিতে পারি না। এর কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, অবৈধ লাইনের কারণে এই সমস্যার সৃষ্টির হয়, রাতের আধারে কিছু এলাকায় অবৈধ বিদ্যুৎ লাইন লাগিয়ে দিনের বেলায় খুলে ফেলে, নিরাপত্তার স্বার্থে এসব এলাকায় রাতে মুভমেন্ট করা সম্ভব হয় না।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।