পতাকা বৈঠকে মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনীর ৪ সদস্যকে হস্তান্তর

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম সীমান্ত দিয়ে মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিপির ৪ সদস্যকে ফেরত দিয়েছে বাংলাদেশ ।

ফেরত দেওয়া বিজিপির সদস্যরা হলেন : মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের মংডুর নাগকুড়া ব্যাটালিয়ানের মেগচিং ক্যাম্পের ক্যাপ্টেন লিউইন কো ম্যায়েং (৩০), সার্জেন্ট ইয়ানাং তুন (৩১), সার্জেন্ট প্যায়াং গি (২৫) ও সিপাহী ক্য ক্য (২৮)।

আজ বুধবার (৪ সেপ্টেম্বর) দুপুর ২টায় নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম সীমান্তের বাংলাদেশ-মিয়ানমার ফ্রেন্ডশীপ ব্রিজ এলাকায় পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে তাদের মিয়ানমারের কাছে হস্তান্তর করে বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড (বিজিবি)।

পতাকা বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে নেতৃত্ব দেন ৩৪ বিজিবির অধিনায়ক লেঃ কর্নেল আলী হায়দার আজাদ আহম্মেদ এর নেতৃত্বে কক্সবাজার রিজিয়নের অপারেশন অফিসার লেঃ কর্নেল সরকার মোস্তাাফিজুর রহমান, ৩০ বিজিবির অধিনায়ক লেঃ কর্নেল মোঃ জাহিদুর রহমান, ২ বিজিবি’র অধিনায়ক লেঃ কর্নেল মোঃ ফয়সাল হাসান খান।

অন্যদিকে মায়ানমারের পক্ষে নেতৃত্ব দেন ১ বিজিপি’র অধিনায়ক পুলিশ লেঃ কর্নেল ক্য উইন হ্লাং এর নেতৃত্বে ক্য উইন মেজর উইন থাই, মেজর অং মইজো লাইন, ক্যাপ্টেন জাও জাও শৈ।

সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে টেকনাফ ২ বিজিবি অধিনায়ক লে. কর্ণেল মোহাম্মদ ফয়সাল হাসান খান (পিএসসি) বলেন, গত ২৫ আগস্ট রাতে টেকনাফের নাজিরপাড়া সংলগ্ন নাফ নদীর তীর থেকে সন্দেহজনকভাবে ঘোরাঘুরির সময় বিজিবির সদস্যরা মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনী-বিজিপির চার সদস্যকে আটক করেছিল। এছাড়া বিজিপি সদস্যদের বহনকারী একটি স্পিডবোটও জব্দ করা হয়। পরে দু দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর ঊর্ধ্বতন পর্যায়ে আলাপ-আলোচনার পর তাদের মিয়ানমারের কাছে হস্তান্তরের সিদ্ধান্ত হয়।

আরো জানা যায়,পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে বুধবার দুপুর ২টায় বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম সীমান্তের বাংলাদেশ-মিয়ানমার ফেন্ডশীপ সেতু পয়েন্ট দিয়ে বিজিপির এসব সদস্যকে জেনেভা কনভেনশন আইন অনুযায়ী আহার, বাসস্থান, চিকিৎসাসহ সব ধরনের সুবিধাদি প্রদান করে মিয়ানমার বিজিপি প্রতিনিধিদলের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।

গত ২৫ আগস্ট রাত সাড়ে ৮টার দিকে টেকনাফ সদরের নাজিরপাড়া সংলগ্ন নাফ নদীর তীরে অভিযান চালিয়ে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিপির চার সদস্যকে অস্ত্রসহ আটক করে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।