পরিবেশ ও মানব জীবনে বৃক্ষের ভূমিকা অপরিসীম : বীর বাহাদুর

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি ফিতা কেটে ও বেলুন উড়িয়ে বৃক্ষ মেলার উদ্বোধন করেন
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কণ্যা শেখ হাসিনা আজ ত্রিশ লক্ষ শহীদের স্মরণে বাংলাদেশের প্রতিটি জেলা ত্রিশ লক্ষ বৃক্ষ রোপনের উদ্বোধন করেন। বৃক্ষ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যের একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান কারণ এরা ভূমিক্ষয় রোধ করে এবং এদের পত্রপল্লবের নিচে আবহাওয়া-সুরক্ষিত বাস্তুসংস্থান তৈরি করে। বৃক্ষ অক্সিজেন তৈরি ও বাতাস থেকে কার্বন ডাই অক্সাইড দূরীকরণ এবং ভূমি তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণেও গুরুত্বপ‚র্ণ ভ‚মিকা পালন করে। আজ বুধবার বিকাল ৪টায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্ত্বরে বনজ, ভেষজ ও ফলদ বৃক্ষ মেলা ২০১৮ এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি।
এসময় পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, পরিবেশের ভারসাম্য ও জীববৈচিত্র রক্ষার জন্য বৃক্ষের গুরুত্ব অপরিসীম। অক্সিজেন মানুষের বেঁচে থাকার জন্য খুবই জরুরী কিন্তু গাছ কাটার তুলনায় নতুন গাছ লাগানো হচ্ছে কম, এতে পরিবেশ উষ্ণ হচ্ছে। জলবায়ু পরিবর্তনে বিরুপ প্রভাব পড়ছে। যার ফলে অসময় অনাবৃষ্টি, খরা, অতিবৃষ্টি, প্রচন্ড তাপদাহ, ঘূর্ণিঝড়, বণ্যা, জলোচ্ছাস সহ নানা দুর্যোগ ঘটে চলেছে। এসময় তিনি উপস্থিত সকলকে নিজ নিজ বাড়ীর আঙ্গিনায় বৃক্ষ লাগানোর অনুরোধ জানান।
এর আগে বান্দরবান জেলা প্রশাসনের কার্যালয় থেকে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক পদক্ষিণ শেষে জেলা প্রশাসনের কার্যালয় চত্ত¡রে মেলা প্রাঙ্গণে এসে শেষ হয়।
র‌্যালী শেষে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি ফিতা কেটে ও বেলুন উড়িয়ে মেলার উদ্বোধন করেন।
পরে বান্দরবানের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আসলাম হোসেন এর সভাপতিত্বে এক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি।
এসময় অন্যান্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকির হোসেন মজুমদার, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য ক্য সা প্রু, সদস্য লক্ষীপদ দাশ, রেড় ক্রিসেন্ট সোসাইটির বান্দরবান ইউনিটের সেক্রেটারী একেএম জাহাঙ্গীর, বান্দরবান বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা কাজী মোহাম্মদ কামাল হোসেন, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরে উপ পরিচালক কৃষিবিদ আলতাফ হোসেন, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা কৃষিবিদ অনিল কুমার সাহা, পাল্পউড প্ল্যান্টেশন বিভাগের সহকারী বন সংরক্ষক মোঃ আনোয়ার হোসেন, সদর রেঞ্জ কর্মকর্তা বজ্রগোপাল রাজ বংশী, সদর উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মো: জিয়াউদ্দিন, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা সুম্মিতা খীসা, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ গোলাম ছরোয়ার, পৌর কাউন্সিলর মোঃ হাবিবুর রহমান খোকন, বান্দরবান ফার্নিচার ব্যবসায়ী সমিতির সিনিয়র সহ-সভাপতি হাজ্বী আবুল বশর সাওদাগর, হাজ্বী মোঃ সিরাজ সাওদাগর, কাঠ ব্যবসায়ী মোঃ জাহাঙ্গীর, কাঠ ব্যবসায়ী মোঃ আসহাব উদ্দীন চৌধুরী, কাঠ ব্যবসায়ী মোঃ মাস্টার শহিদসহ বান্দরবান জেলার বিভিন্ন সরকারি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা।
পরে প্রধান অতিথি সহ সকল অতিথিবৃন্দরা মেলায় অংশ নেয়া বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ষ্টল ঘুরে দেখেন। এবারের মেলায় বান্দরবান বন বিভাগ, কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ, ব্রিটিশ আমেরিকান কোম্পানী, হর্টিকালচার, চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী পুষ্প নার্সারী, ফতেয়াবাদ নার্সারী, বান্দরবানের সুপরিচিত বিন্দু নার্সারীসহ প্রায় ৩০ টির ও বেশি স্টল অংশ নিয়েছে, প্রতিটি স্টলে নানা রকম বনজ ভেষজ ও ফলদ বৃক্ষ রয়েছে। মেলায় বান্দরবানের স্থানীয় নার্সারীর পাশাপাশি বাজালিয়া , বাঁশখালি,সাতকানিয়া ও চট্টগ্রাম থেকে বিভিন্ন নার্সারীর স্টল ক্রেতাদের চাহিদা মিটাতে নানা জাতের বৃক্ষ নিয়ে হাজির হয়েছে। আগামী ২৪ জুলাই সপ্তাহব্যাপী এই বৃক্ষমেলা শেষ হবে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।