পারিবারিক কলহে লামার হত্যাকান্ডটি হয়ে থাকতে পারে : পুলিশ সুপার জেরিন আক্তার

লামায় মা’সহ দুই মেয়েকে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের শাশুড়ি বাদী হয়ে লামা থানায় মামলা দায়ের করেন। আমরা ঘটনার তদন্ত করছি পারিবারিক জেরে বা পারিবারিক কলহের কারনে এই হত্যাকান্ডটি হয়ে থাকতে পারে। আজ শনিবার (২২মে) দুপুরে ফোনে বান্দরবান জেলার পুলিশ সুপার জেরিন আক্তার পাহাড়বার্তা’কে একথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, এই ঘটনার আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। পুলিশ, পিবিআই, র‌্যাব এক সাথে কাজ করে যাচ্ছে। শীঘ্রই এই হত্যাকান্ডের রহস্য উৎঘাটন করা সম্ভব হবে বলে আশা করছি।

এদিকে লামা থেকে পাহাড়বার্তার প্রতিনিধি জানান, বান্দরবানের লামা পৌরসভা এলাকার চাম্পাতলী গ্রামের এক কুয়েত প্রবাসীর বসতঘরে স্ত্রী ও দুই সন্তানকে হত্যার ঘটনায় ৬ জনকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। এদের মধ্যে গত শুক্রবার (২১মে) রাতে ৫ জন ও শনিবার সকালে ১ জনকে আটক করা হয়। আটকরা হলেন, নিহত মাজেদা বেগমের স্বামী নুর মোহাম্মদের ছোট ভাই আবদুল খালেক ও শাহ আলম, নিহত মাজেদা বেগমের বড় বোন রাহেলা বেগম ও তার স্বামী আবদুর রশিদ, হাফেজ সাঈদুর রহমান ও দোকানদার রবিউল ইসলাম।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে লামা পৌরসভার চাম্পাতলী গ্রামের কুয়েত প্রবাসী নুর মোহাম্মদের বসতঘর থেকে তার স্ত্রী ও দুই মেয়ের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।