পার্বত্য জেলায় হচ্ছে নতুন ৩ পানি পরীক্ষাগার

তিন পার্বত্য জেলায় পানির গুণগত মান পরীক্ষার জন্য পানি পরীক্ষাগার স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আগামী ২০২২ সালের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে এই ৩ জেলার মানুষ পানের জন্য সুপেয় বিশুদ্ধ পানি পাবেন । টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনের জন্য নিরাপদ পানি সরবরাহ নিশ্চিত করাই এই সিদ্ধান্তের মূল লক্ষ্য।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে,বান্দরবান,রাঙামাটি ও খাগড়াছড়ি তিন পার্বত্য জেলার অধিকাংশ এলাকায় বিশুদ্ধ পানির স্বল্পতা রয়েছে। এসব জেলায় পৌরসভার তত্ত্বাবধানে সরবরাহ করা পানি যেটুকু আছে তার গুণগত মান ভালো নয়। কারণ, তা পরীক্ষা করে নিশ্চিত হওয়ার কোনও সুযোগ নাই। তাই নিরাপদ পানি সরবরাহ নিশ্চিত করার জন্য জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরের আওতায় এসব পানি পরীক্ষাগার স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ লক্ষ্যে পৃথক একটি প্রকল্প গ্রহণ করেছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়।

স্থানীয় সরকার বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ইতোমধ্যেই “পানির গুণগতমান পরীক্ষা ব্যবস্থা শক্তিশালীকরণ ” শীর্ষক প্রকল্পটি পরিকল্পনা কমিশনে পাঠানো হয়েছে এবং তা জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) অনুমোদন পেয়েছে। প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে নতুন পরীক্ষাগার স্থাপনের মাধ্যমে পানি পরীক্ষা কার্যক্রম শক্তিশালী করা ও গতিশীলতা বাড়ানো, পানি পরীক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করা ও রক্ষণাবেক্ষণ কাজে সক্ষমতা বাড়ানো।

সূত্র আরও জানায়, প্রকল্পের আওতায় নতুন পরীক্ষাগারের নিমিত্ত বিদ্যমান ভবন সম্প্রসারণ করা হবে। পরীক্ষাগারের জন্য যন্ত্রপাতি কেনা হবে। পানি পরীক্ষার জন্য রাসায়নিক দ্রব্যাদি কেনা হবে। জেলার জন্য আসবাবপত্র, মোটরযান, যন্ত্রপাতি ও সরঞ্জাম রক্ষণাবেক্ষণ, অফিস ভবন মেরামত ও সংরক্ষণ, প্রকল্পের জন্য জিপ গাড়ি, মোটর সাইকেল কেনাসহ সংশ্লিষ্টদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।