পাহাড়ে বসবাসকারীদের সরে যেতে দিনভর অভিযান

খাগড়াছড়িতে ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বসবাসকারীদের সরাতে জেলা প্রশাসনের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। প্রবল বর্ষণে পাহাড় ধসের শঙ্কা থাকায় মঙ্গলবার সকাল থেকে জেলার বিভিন্ন স্থানে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান টিম ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বসবাসকারীদের সরিয়ে আনতে অভিযান চালায়।
বেলা ১১টার দিকে খাগড়াছড়ি জেলা সদরের শালবন, হরিনাথ পাড়া গ্যাপসহ বেশ কিছু এলাকায় খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা এলিশ শরমিন অভিযান পরিচালনা করেন। এসময় হরিনাথ পাড়া গ্যাপ, শালবন আঠার পরিবার এলাকায় ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বসবাসকারী চারটি পরিবারকে শালবন আশ্রয় কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। কিন্তু ভ্রাম্যমান টিম শালবন এলাকা ছাড়ার পর অনেক গুলো পরিবার বাড়ি ফিরে গেছে।
শালবন এলাকার বাসিন্দা ফরিদ মিয়া জানান, জীবনের সবটুকু সঞ্চয়ে গড়া বসতভিটা ছেড়ে অনেকে যেতে চাচ্ছে না। ঝুঁকি নিয়েও তারা বাড়িতে থাকছে। এবিষয়ে প্রশাসনকে আরো কঠোর অবস্থান নেয়া জরুরী।
সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) এলিশ শরমিন জানান, ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বসবাসকারীদের সরিয়ে আশ্রয় কেন্দ্র ও নিরাপদ স্থানে নিতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। নিরাপদ স্থানে সরে যেতে মাইকিং করা হচ্ছে। শালবন এলাকার একটি বাড়ির উপর পাহাড় ধসে পড়ায় পরিবারের সদস্যদের মঙ্গলবার দুপুরে আশ্রয় কেন্দ্রে পাঠানো হয়।
খাগড়াছড়ি জেলার বিভিন্ন স্থানে পাহাড় ধসের ঝুঁকি থাকায় জেলা সদরের একটিসহ মানিকছড়ি, রামগড় ও মহালছড়িতে পাচটি আশ্রয় কেন্দ্র খুলেছে জেলা প্রশাসন।
উল্লেখ্য, চলতি বর্ষা মৌসুমে প্রবল বর্ষণে পাহাড় ধসে খাগড়াছড়ির রামগড় ও ল²ীছড়িতে পাহাড় ধসে শিশুসহ ৪ জন নিহত ও ১০ জন আহত হয়েছে। পাহাড় ধসের ঝুঁকিতে রয়েছেন প্রায় সহ¯্রাধিক পরিবার।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।