ফেসবুকে সরব,রাজনীতির মাঠে নিরব : বান্দরবান বিএনপি

বিএনপি
জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ে বেগম খালেদা জিয়ার পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড এবং তারেক রহমানসহ অন্য আসামিদের ১০ বছর করে কারাদণ্ড ঘোষণা করার প্রেক্ষিতে এর প্রতিবাদে শুক্রবার সারাদেশে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় বিএনপি। এই কর্মসূচির অংশ হিসেবে শুক্রবার বান্দরবানে বিক্ষোভ মিছিল হওয়ার কথা থাকলেও মাঠে নেই বিএনপি নেতাকর্মীরা। ক্ষোধ রায়ের দিন জেলা শহরে বিভিন্ন পয়েন্টে আওয়ামী লীগ তাদের নেতাকর্মীদের নিয়ে মাঠে থাকলেও দেখা যায়নি বিএনপির কোন নেতাকর্মীদের, তবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এই রায়ের প্রতিবাদে বেশ সরব ছিল বিএনপির নেতাকর্মীরা।
এ বিষয়ে বান্দরবানের এক সিনিয়র বিএনপি নেতা (নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক) বলেন, কেন আমরা মিছিল করবো? এখনতো টাকা দিয়ে দলে পদ দেয়া হয়। এমন কি আমাদের বান্দরবান জেলা কমিটিও টাকায় কেনা কমিটি। এই কমিটিতে ত্যাগী নেতাদের নেই কোন স্থান। তিনি আরো বলেন, যখন টাকার বিনিময়ে বিভিন্ন কমিটি দেওয়া হচ্ছে, তখন তো কোন খবর নেননি তৃণমূল নেতাকর্মীদের। এখন আমরা কেন মাঠে নেমে উনার দুর্নীতির ভার নিব।
অন্য একজন জেলা বিএনপির নেতার বলেন, আমরা বান্দরবান জেলা বিএনপি সব সময় দলের জন্য ত্যাগ স্বীকার করেছি। দলের সুবিধা বলতে আমরা কখনো কিছু পাইনি। আমাদের বান্দরবানে বিএনপি সব সময় দুই গ্রুপে বিভক্ত থাকে যার ফলে আমরা কোন কিছু করতে চাইলে অন্য গ্রুপ এসে আমাদের বাধ দেয় বা অন্য গ্রুপে আমাদের নানা ভাবে মামলায় ফেলে।
এদিকে বান্দরবানে উধাও হয়ে গেছে বিএনপি’সহ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। তবে রায়’কে কেন্দ্র করে বিশৃঙ্খলা এড়াতে বান্দরবান জেলা শহর’সহ আশপাশের এলাকাগুলোতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় আদালত বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া, সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান’কে সাঁজা দেয়ার ঘটনায় বান্দরবানে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়। বিশৃঙ্খলা এড়াতে বিএনপির অফিস, আওয়ামীলীগ কার্যালয়’সহ শহরের মোড়ে মোড়ে অতিরিক্ত পুলিশ ফোর্স মোতায়েন করা হয়েছে। তবে রায়ের আগে এবং পরে বিএনপি’সহ সহযোগী সংগঠনের কোনো নেতাকর্মীকে রাজপথে দেখা যায়নি, এমনকি বান্দরবান শহরের বিএনপির নেতাদের ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানও ছিল বন্ধ। বিএনপির নেতাকর্মীরা “আমার নেত্রী আমার মা,বন্দি হতে দেবোনা”, “জোট বাধ, তৈরী হও মহাবিপ্লবের জন্য” নিজেদের ফেসবুক ওয়ালে এই ধরণের প্রচার চালিয়ে দায় সাড়ে।
এই ব্যাপারে বান্দরবানের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ কামরুজ্জামান জানান, রায়’কে কেন্দ্র করে বান্দরবানে নিরাপত্তা ব্যবস্থা বাড়ানো হয়েছে। রায়ের আগে এবং পরে কোনো ধরণের বিশৃঙ্খলার ঘটনা ঘটেনি।

আরও পড়ুন
1 মন্তব্য
  1. M Helal Uddin বলেছেন

    মার্ক করা শব্দ গুলো সত্যতা কতটুকু প্রশ্নে রইলো…
    আশা করি আগামীতে বষ্ঠনিষ্ট সংবাদ পাবো!! মনগড়া নয়…
    বান্দরবানের প্রথম অনলাইন নিউজ পোর্টাল পাহাড় বার্তার নিয়মিত পাঠক আমিও একজন,
    পত্রিকাটি সার্বজনীন করার অনুরুদ্ধ রইল, কোন বিশেষ দলের মূখপত্র দায়িত্ব পালন করতে হলে পৃর্বে ঘোষনা দিবেন।

    পরিশেষে পাহাড় বার্তা জন্য শুভকামনা রইলো…

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।