বকেয়া বেতনের দাবিতে কেপিএম এমডির অফিস ঘেরাও

প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত শ্রমিক কর্মচারিদের নতুন মজুরী কমিশনে বেতন বাস্তবায়ন করা হলেও রাঙামাটির কাপ্তাইয়ের কর্ণফুলী পেপার মিলস্ লিমিটেডে (কেপিএম) গত তিন মাস যাবত কর্মরত শ্রমিক, কর্মচারিদের বকেয়া বেতন, ভাতা প্রদান না করায় অার কোন উপায় না পেয়ে মঙ্গলবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত মিলটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ডা. এম.এম.এ কাদেরের অফিস ঘেরাও করেছে ৩’শতাধিক শ্রমিক কর্মচারিরা।

নতুন মজুরি কমিশনে বেতন ভাতা প্রদান না করা হলে বুধবার থেকে এমডির কার্যালয় অনিদিষ্টকাল পর্যন্ত ঘেরাও করে রাখার কর্মসূচির ঘোষণা দেন শ্রমিক নেতারা।

এদিকে শ্রমিক কর্মচারিদের অভিযোগ, মিলসটিতে বর্তমানে এমডি তার অদৃশ্য শক্তির বলে কর্মচারিদের নানা ভাবে অত্যাচার করে অাসছে। তার অত্যাচারে কেউ মুখ খুলতে পারছেনা। তারই ধারাবাহিকতায় গত তিন মাস যাবত বেতন, ভাতা বকেয়া পড়ে থাকার পড়েও তা পরিশোধ করা হচ্ছেনা।

ষাটোর্ধ এক শ্রমিক বলেন, গত তিন মাস যাবত বেতন ভাতাদি না পাওয়ায় ঋণের ভাড়ে অামাদের পিট দেয়ালে ঠেকে গিয়েছে। কিন্তু এমডি এই বিষয়ে অামাদের সাথে কোন কথা বলতেই রাজি না। অার সহ্য করতে না পেরেই অামারা এমডির অফিস ঘেরাও করি।

অন্য অারেক শ্রমিক নেতা দাবি করেন, বর্তমান এমডি কেপিএমকে ধ্বংস করতে পর্যায়ক্রমে একের পর গুরুত্বপূর্ণ মিশিন ব্যবহার বন্ধ করে দিচ্ছেন। তার অামলে পেপার মিলসের প্রাণ পাল্প মিশিন সহ অনেক যান্ত্রাংশের ব্যবহার বন্ধ করা হয়েছে। ফলে মিলসকে লোকসান গুনতে হচ্ছে।

এদিকে বিকেল ৫টার সময় কেপিএমের মুল ফটকে মাটিতে বসে শ্রমিক কর্মচারিরা তাদের দাবি অাদায়ে বিভিন্ন ধরণের শ্লোগান দিতে থাকে। তারা বলেন, অা’লীগ সরকার যেখানে দেশের উন্নয়ন চায় সেখানে এই এমডি কেন এশিয়ার বৃহত্তর এই মিলসকে ধ্বংসের পায়তারা করছে তা অামারা খুব ভালো বুঝতে পারছিনা। অামরা শীঘ্রই এই বিএনপি পন্থি এমডির বদলী চাই।

এদিকে শ্রমিকরা মারমুখী অবস্থানে যাওয়ার ফলে কেপিএমের শ্রমিক নেতাদের সাথে বসলেও পুরাতন স্কেলেই তাদের বেতন ভাতাদি প্রদানে এমডি অটল রয়েছে বলে জানান কেপিএমের সিবিএ সভাপতি মো. রাজ্জাক হোসেন।

তিনি বলেন, দেনার ভাড়ে অামরা জর্জরিত হয়ে অামাদের পিট দেয়ালে ঠেকে গিয়েছে। অামরা অার পারছিনা।

চন্দ্রঘোনা ইউপি চেয়ারম্যান অানোয়ার ইসলাম চৌধুরী বেবি সাংবাদিকদের বলেন, মাননীয় প্রধান মন্ত্রী যেখানে নতুন বেতন স্কেল ঘোষণা দিয়ে তা বিসিঅাইসির মাধ্যমে বাস্তবায়ন করেছেন সেখানে কোন অদৃশ্য শক্তির প্রভাবে মিলসটির এমডি শ্রমিকদের বেতন করবেনা তা খতিয়ে দেখতে হবে।

তিনি অারও বলেন, বর্তমানে কেপিএমে যে পরিমাণে শ্রমিক কর্মচারি রয়েছে তারা প্রত্যেকে দীর্ঘদিন যাবত বেতন-ভাতাদি না পেয়েও তাদের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। শ্রমিক কর্মচারিরা যাতে বেতন না পেয়ে তাদের কাজকর্ম বন্ধ করে দেয় অামার মনে হয় এটাই তিনি চাচ্ছেন।

এদিকে বিকেলে এমডির অফিস ঘেরাও কর্মসূচি উত্তেজনায় রুপ নিলে ঘটনাস্থলে সাংবাদিকরা প্রবেশ করতে চাইলে কেপিএমের এমডি ডা. এম.এম.এ কাদের সাংবাদিকদের মিলটির ভিতরে প্রবেশ করতে দেয়নি।

ফটো ক্যাপশনঃ কাপ্তাইয়ের কেপিএমের মূল ফটকে শ্রমিক কর্মচারিদের বেতন অাদায়ের দাবিতে অান্দলন।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।