বনায়নে লভ্যাংশ পেল ৬২৬ জন উপকারভোগী

বান্দরবানের লামা বন বিভাগের সদর রেঞ্জের আওতাধীন বমু বিটে ২০০৫-০৬ আর্থিক সালে সৃজিত সামাজিক বনায়নের লভ্যাংশের ৩১ লক্ষ ৬৭ হাজার ১০০ টাকার চেক বিতরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে বনায়নের ৩৬জন উপকারভোগির মধ্যে এ লভাংশের চেক বিতরণ করা হয়। এ উপলক্ষে বিভাগীয় বন কর্মকর্তা কামাল উদ্দিন আহামদের সভাপতিত্বে বিতরন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, চকরিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাফর আলম। এতে সদর রেঞ্জার হারুন অর রশিদ বাবলু, তৈন রেঞ্জার সামশুল হুদা, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো. কামরুজ্জামান, যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক মো. ফরিদ উদ্দিন, সাংবাদিক মুহাম্মদ কামালুদ্দিন, বমু বিলছড়ি ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মো. কফিল উদ্দিন, জাতীয় পার্টির সভাপতি মো. নাজিম উদ্দিন বিশেষ অতিথি ছিলেন। শেষে অতিথিবৃন্দ উপকারভোগীদের হাতে লভ্যাংশের চেক তুলে দেন। চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, একটি গাছের বিভিন্ন অংশ মানুষের জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত কাজে লাগে। সন্তান বড় হয়ে মা বাবার সাথে বেইমানী করতে পারে, কিন্তু একটি গাছ কখনো বেইমানী করেনা। তাই সবাইকে বেশি বেশি করে গাছ লাগানোর পাশাপাশি প্রাপ্ত লভ্যাংশের টাকা সঠিক ভাবে ব্যবহার করে নিজেদেরকে স্বাবলম্বি করে গড়ে তুলতে হবে। তবেই নিজের, সমাজের তথা দেশের উন্নয়নে সহায়ক হবে বলে মন্তব্য করেন বক্তারা। এ বিষয়ে বিভাগীয় বন কর্মকর্তা কামাল উদ্দিন আহমদ বলেন, ২০০৫ সালে কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগ হতে লামা বন বিভাগে হস্তান্তরের পর বমু বিটের আওতায় ৩৩৭.৮৮ হেক্টর পাহাড়ি জমিতে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে বাগান সৃজন করা হয়। এতে ৬২৬ জন উপকারভোগী রয়েছেন। #

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।