বাংলাদেশের উন্নয়ন পৃথিবীকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে : খাগড়াছড়িতে নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

বাংলাদেশ স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষ নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয় রামগড় স্থলবন্দর উন্নয়ন কার্যক্রম পরিদর্শন ও অংশীজনদের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ রোববার(১৪ফেব্রুয়ারী) দুপুরের দিকে খাগড়াছড়ির রামগড় উপজেলায় স্থলবন্দর উন্নয়ন কার্যক্রম পরিদর্শন এবং অংশীজনদের সাথে মতবিনিময় করেন। সভায় বাংলাদেশ স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান (অতিরিক্ত সচিব) মোহাম্মদ আলমগীর’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ নৌ-পরিবহন মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী খালেদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি।

এ সভায় প্রধান অতিথি বক্তব্যে তিনি বলেন, আমরা খুব অল্প কিছুদিনের মধ্যেই আমাদের স্থাপনাগুলো তৈরি করে ফেলতে পারবো। আমরা আশা করি রামগড় বাসীর যে স্বপ্ন,পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের মানুষের দেশ যে স্বপ্ন,সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন হচ্ছে এই মৈত্রীসেতুর স্থলবন্দর। এই সেতুর মধ্যদিয়েই স্বপ্ন বাস্তবায়ন হয়েই যাবে। আমরা একটা কল্যাণকর রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করার সংগ্রামে আছি। কল্যাণকর রাষ্ট্রের যে রীতি,যে নীতি,তারই লক্ষ্যে আমরা ভারতের সঙ্গে আমাদের সম্পর্কটা উন্নয়ন হয়েছে। আমাদের মুক্তিযুদ্ধের সময়ের সম্পর্কটা যে তৈরি হয়ে গেছে। সেই সম্পর্কে কাছাকাছি আমরা চলে গেছি। ইতোমধ্যে ভারতের সাথে আমাদের শুধু ব্যবসা বাণিজ্য নই,মানবিক কল্যাণকর রাষ্ট্রের যে নীতি সেগুলো ক্ষেত্রেও আমরা ঐক্যবদ্ধ আছি।

তিনি আরো বলেন, ভারত সরকারের প্রধানমন্ত্রী থেকে রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশে একাধিকবার সফর করেছেন ও বাংলাদেশ সম্পর্কে তাদের যে প্রশংসা আমাদেরকে আরো উজ্জীবিত করেছে এবং আশা জুগিয়েছে। আমাদেরকে সেই পথ ধরে প্রতিবেশী রাষ্ট্রের সঙ্গে ব্যবসা বাণিজ্য শুধু নই,আমাদের সাংস্কৃতিক যে বন্ধন,সে বন্ধনটাকে আরো এগিয়ে নেয়ার জন্য এই স্থলবন্দরগুলো আরো বেশি সচল করবোএবং সমৃদ্ধ করবো। কল্যাণকর রাষ্ট্র তৈরির জন্য যে লক্ষ্য ছিলো, সেই লক্ষ্যের অংশ হচ্ছে এই স্থলবন্দর।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়ন সমগ্র পৃথিবীকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে।আমরা দারিদ্র্য দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হয়েছি। উন্নত দেশের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছি।উন্নত রাষ্ট্রের দিকে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে।আজকে পহেলা বসন্ত, এই পাহাড়ের বসন্তের ফুটিয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই অঞ্চলের বসন্তের রং সমগ্র বাংলাদেশে ছড়িয়ে দিতে চাই। মুক্তিযুদ্ধের ৩০লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে আজ বাংলাদেশ মর্যাদার জায়গায় স্থান পেয়েছে।আমরা তাদের কারণেই আজ সুন্দর একটি রাষ্ট্র উপহার পেয়েছি এবং স্বাধীন দেশ হিসেবে বিশ্বের মানচিত্রে স্থান পেছেছে। আমরা তাদেরকে স্বরণ করবো সবসময়।বাংলাদেশের সমগ্র উন্নয়ন আমরা শহীদদের প্রতি উৎসর্গ করবো।

এ সময় খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মংসুইপ্রু চৌধুরী, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোঃ আলিমউল্লাহ, রামগড় উপজেলার চেয়ারম্যান বিশ্ব প্রদীপ কুমার ত্রিপুরা (কার্বারী), রামগড় পৌরসভার মেয়র মোঃ রফিকুল আলম কামাল, খাগড়াছড়ি সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি প্রদীপ চৌধুরীসহ আরো অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।