বাঘাইছড়িতে হামলায় ৭ সদস্যের তদন্ত কমিটি

রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলায় নির্বাচনী দায়িত্বপালনকারীদের ওপর হামলায় সাতজন নিহতের ঘটনা তদন্তে কমিটি গঠন করা হয়েছে।

চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান এর নির্দেশে গঠিত সাত সদস্যের এ কমিটিতে চট্টগ্রাম বিভাগীয় স্থানীয় সরকার পরিচালককে সভাপতি করা হয়েছে। কমিটিকে ১০ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয় সূত্র জানায়, তদন্ত কমিটির সদস্যরা হত্যাকাণ্ডের প্রকৃত কারণ উদঘাটন করবেন। সরেজমিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে নিহত-আহতদের জানমালের প্রকৃত ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ করবেন। পাশাপাশি ভবিষ্যতে এরূপ সহিংসতা প্রতিরোধকল্পে করণীয় বিষয়ে প্রয়োজনীয় সুপারিশমালা প্রণয়ন করবেন।

গত সোমবার উপজেলা পরিষদ নির্বাচন শেষে রাঙ্গামাটি জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলার নয় মাইল এলাকায় বাঘাইহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কংলাক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং মাচালং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাচনী কর্মকর্তারা ভোটের সামগ্রীসহ উপজেলা সদরে সন্ধ্যায় ফেরার পথে দুষ্কৃতকারীরা অতর্কিতভাবে হামলা করে।

এতে ছয়জন ঘটনাস্থলে এবং একজন হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যান। নিহতরা হলো-আনসার ও ভিডিপি সদস্য জাহানারা বেগম (৪০), মিহির কান্তি দত্ত (৪০), বিলকিস আক্তার (৫০), আল আমিন (২৫), পোলিং অফিসার মো. আমির আলী (৩৭), গাড়িচালক সহকারী মন্টু চাকমা ও পোলিং অফিসার মো. তৈয়ব। এ ঘটনায় ১২ জন গুরুতর আহতসহ ২৪ জন আহত হয়েছেন বলে চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে।

সাত সদস্যের এ তদন্ত কমিটির অপর ৬ সদস্যের মধ্যে চট্টগ্রাম অঞ্চলের অতিরিক্ত ডিআইজি পদমর্যাদার একজন, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের যুগ্ম সচিব পদমর্যাদার একজন প্রতিনিধি, চট্টগ্রাম ৩০ আনসার ব্যাটালিয়নের পরিচালক ও ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক, রাঙ্গামাটি বিজিবি সেক্টর সদর দফতরের মেজর পদমর্যাদার প্রতিনিধি, রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা ও রাঙ্গামাটি অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে রাখতে বলা হয়েছে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।