বাঙালী তিন সংগঠনের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি: কাল উত্তপ্ত হতে পারে খাগড়াছড়ি

খাগড়াছড়ি জেলা
খাগড়াছড়িতে বাঙালী তিন সংগঠনের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচিতে সাধারণ জনণের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে। আগামী রোববার পার্বত্য বাঙালী ছাত্র পরিষদের(পিবিসিপি) মাঈন-মাসুম প্যানেল হরতাল কর্মসূচি, মজিদ-লোকমান প্যানেল মহাসমাবেশ ও পার্বত্য চট্টগ্রাম সম-অধিকার আন্দোলনের অবরোধ কর্মসূচির ডাক দিয়েছে। পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন ও প্রচারপত্র বিতরণের মাধ্যমে এসব কর্মসূচি আহব্বান করার পর থেকে জেলা জুঁড়ে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে।
জেলার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে মহাসমাবেশের অনুমতি দেয়া হচ্ছেনা বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক মো: রাশেদুল ইসলাম। শনিবার বেলা আড়াইটায় তিনি জানান, পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি থাকায় জানমালের নিরাপত্তার স্বার্থে মহাসমাবেশের অনুমতি দেয়া হচ্ছেনা। অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সজাগ রয়েছে বলেও জানান তিনি।
মহালছড়িতে নিহত সাদেকুল ইসলামের হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে পুনর্বাসনের দাবিতে পিবিসিপি’র মাঈন-মাসুম পক্ষের পূর্বঘোষিত সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালন করবে বলে জানিয়েছেন পিবিসিপি’র খাগড়াছড়ি শাখার সাধারণ সম্পাদক এস এম মাসুম রানা। অন্যদিকে, পিবিসিপি’র দাবিকে সমর্থন জানিয়ে একইদিন সকাল-সন্ধ্যা সড়ক অবরোধের ডাক দিয়েছে পার্বত্য চট্টগ্রাম সম-অধিকার আন্দোলন।
মহাসমাবেশ বানচাল করতে হরতাল: পিবিসিপি’র সন্ত্রাসবিরোধী মহাসমাবেশকে বানচাল করতে একটি পক্ষের ইন্দনেই মাঈন উদ্দিন-মাসুম রানারা সমাবেশের বিরোধীতা করছে দাবি করে শনিবার বেলা সাড়ে ১১টায় সংবাদ সম্মেলন করেছে পিবিসিপি’র মজিদ-লোকমান প্যানেল। অচিরেই বিরোধীতাকারীদের ব্যাপারে সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত আসছে বলে হুশিঁয়ারী দেয়া হয় সংবাদ সম্মেলন থেকে। সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন পিবিসিপি’র প্রতিষ্ঠা সভাপতি আলকাছ আল মামুন, সাধারণ সম্পাদক এড. এয়াকুব আলী চৌধুরী, পার্বত্য নাগরিক পরিষদের আহব্বায়ক নূর জাহান বেগম, মহাসমাবেশ বাস্তবায়ন কমিটির আহব্বায়ক আব্দুল মজিদ প্রমুখ।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।