বান্দরবানের আদিবাসী পল্লীতে যুবলীগের সেই জি কে শামীমের থাবা

বান্দরবান সদরের পর্যটন জোন হিসেবে খ্যাত মিলনছড়ি নামক স্থানে আদিবাসী পল্লী দখল করে গড়ে উঠা বিলাসবহুল পর্যটন রিসোর্ট সিলভান ওয়াই রিসোর্ট এন্ড স্পা’তে কোটি কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছেন দেশের আলোচিত যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা এস এম গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জি কে শামীম এর।

সূত্রে জানা গেছে, প্রায় দ্ইুশ’ কোটি টাকা বিনিয়োগের টার্গেট নিয়ে আদিবাসী পল্লী উচ্ছেদ করে ১০০ একর পাহাড়ী এলাকা জুড়ে বিলাসবহুল এই রিসোর্টটি তৈরি করা হচ্ছে। রিসোর্টটির মালিকানায় যে ৮ জন শেয়ারদার রয়েছেন তার মধ্যে জিকে শামীম একজন।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, রিসোর্ট কর্তৃপক্ষ এখানে কমপক্ষে ১০০ একর জমি জবরদখল করেছে। পাশাপাশি প্রশাসনকে নিজেদের স্বার্থে ব্যবহারের জন্য পুলিশ ফাঁড়ির জন্য জমি দান করে সেখানে পাকা ভবনও করে দেওয়া হচ্ছে। দ্বিতল ভবনটি নির্মাণের কাজ এখন অনেকটাই এগিয়ে গেছে। শিগগিরই এই ভবনে পুলিশ ফাঁড়ি স্থানান্তরিত হওয়ার কথা রয়েছে।

পার্বত্য চট্টগ্রাম বন ও ভূমি অধিকার সংরক্ষন আন্দোলন এর বান্দরবান চ্যাপ্টারের সভাপতি জোয়াম লিয়ান আমলাই বলেন, প্রশাসনে সহযোগিতায় আদিবাসীদের ভূমি জিকে শামীমসহ অন্যরা দখল করেছে, আমরা এই ভূমি দখলমুক্ত চাই।

রিসোর্টটির সভার রেজুল্যশন কপির তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮ সালের ৫ এপ্রিল রিসোর্টটির একটি বোর্ড মিটিং জেলা সদরের ৩১৩ নম্বর রেজি. অফিসে অনুষ্ঠিত হয়। এতে দেখা যায়, জসিম উদ্দিন মন্টু চেয়ারম্যান, ফজলুল করিম চৌধুরী (স্বপন) ব্যবস্থাপনা পরিচালক, গোলাম কিবরিয়া শামীম (জিকে শামীম), শামিল উদ্দিন শুভ উপ ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং পরিচালক হিসাবে আছে এস এইছ এম মহসিন, উম্মে হাবিবা নাসিমা আক্তার,জিয়া উদ্দিন আবির এবং জাওয়াদ উদ্দিন আরবাব।

আরো জানা গেছে, জিকে শামীমের ঘনিষ্ট বলে পরিচিত চট্টগ্রাম ১৪ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম চৌধুরীর ছোট ভাই ব্যবসায়ী জসিম উদ্দিন মন্টু এই রিসোর্টটির মূল উদ্দ্যেগক্তা।

রিসোর্টটির চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন মন্টু আলোচিত যুবলীগ নেতা জিকে শামীমের শেয়ারের কথা স্বীকার করে জানিয়েছেন, প্রথম পর্যায়ে প্রায় ২ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছেন রিসোর্টটিতে। তবে পাঁচ তারকা মানের রিসোর্টটিতে বিনিয়োগ দাঁড়াবে ২’শ কোটি টাকা।

রিসোর্টটির সূত্রে জানা যায়, গত ২৩ আগস্ট রিসোর্টটির রাইড এমিজম্যান পার্ক, ওয়াচ টাওয়ার ওয়াটার রাইড ও গেম জোন স্থাপনের জায়গা পরিদর্শন করেন চায়না,ভারত ও দেশের বুয়েটের পরামর্শক দল। সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড, ব্যাংকক এর বিদেশি প্রকৌশলীরা রিসোর্টের ডিজাইন করছেন। মূল কাজের দায়িত্বে আছে বুয়েট। ২টি পার্টে রিসোর্টটির কার্যক্রম চলমান রয়েছে। ৫ তারকা বিশিষ্ট রিসোর্টটি তৈরি হলে ২৫০ জন পর্যটকের আবাস হবে এখানে। ৫ থেকে ৬ টি আধুনিক মানের রেস্টুরেন্ট থাকবে এর ভিতরে। নির্মাণ করা হবে উন্নত বিশ্বের আধুনিক মানের সুইমিং পুল। থাকবে জিম ক্লাব, থাকবে ৬ টি গল্ফ ক্লাব। আগামী ২২ সালের ১লা জানুয়ারি এই রিসোর্ট উদ্বোধন করার কথা রয়েছে।

গত ১১ সেপ্টেম্বর ইউপিডিএফ এর ৪ সহযোগী সংগঠনের সভাপতি বান্দরবানে প্রশাসনের সহযোগিতায় বহিরাগতরা জমিজমা বেদখল করে তাদেরকে গ্রাম থেকে উচ্ছেদ করা হচ্ছে অভিযোগ করে যৌথ বিবৃতি দেন।

পর্যটন রিসোর্ট সিলভান ওয়াই রিসোর্ট এন্ড স্পা’তে গত ২৩ আগস্ট চায়না,ভারত ও দেশের বুয়েটের পরামর্শক দল পরিদর্শন করেন

অন্যদিকে স্থানীয় পাহাড়িদের জায়গা দখলের যে অভিযোগ আনা হয়েছে এটি ভিত্তিহীন উল্লেখ করে জসিম উদ্দিন মন্টু জানিয়েছেন,সরকারি নিয়ম মেনে পাহাড়ি সম্প্রদায়সহ বিভিন্ন জনের কাছ থেকে জায়গাগুলো ক্রয় করা হয়েছে।

এই ব্যাপারে বান্দরবানের বোমাং রাজা উ চ প্রু চৌধুরীর সহকারী অং ঝায় খ্যায়াং বলেন, পার্বত্য শান্তি চুক্তির বিধান অনুসারে বান্দরবানের স্থায়ী বাসিন্দা না হলে বহিরাগত কেউ জেলায় ভূমি ক্রয় করতে পারেনা।

এদিকে স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতায় আদিবাসীদের ভূমি দখল করে জিকে শামীমের অর্থে গড়ে উঠা আলিশান রিসোর্টটির কার্যক্রম দ্রুত বন্ধ করার দাবি জানিয়েছে আদিবাসীসহ স্থানীয়রা।

রিসোর্টির বিরুদ্ধে জায়গা দখলের অভিযোগের বিষয়ে বান্দরবানের জেলা প্রশাসক দাউদুল ইসলাম স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, অভিযোগ পাওয়ার পরই তদন্ত কমিটি করা হয়েছে এবং তদন্তের পরই প্রশাসন সিদ্ধান্ত নিবে।

প্রসঙ্গত,গত শুক্রবার র‌্যাব রাজধানীর নিকেতনের নিজ কার্যালয় থেকে যুবলীগের কেন্দ্রীয় সমবায় বিষয়ক সম্পাদক জি কে শামীমকে বিপুল পরিমাণ নগদ অর্থ, এফডি আর, মদ, অস্ত্র এবং ৬ দেহরক্ষীসহ গ্রেফতার করা হয়।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।