বান্দরবানের ত্রিপুরা শিক্ষার্থী ধর্ষণের শিকার : গ্রেফতার ১

বান্দরবানের পাশ্ববর্তী কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলায় খ্রিস্টান মিশনারী প্রাঙ্গণের ভিতরে এক ত্রিপুরা কিশোরীকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতের নাম শিমু বড়ুয়া (৩০)। গত শুক্রবার রাতে চকরিয়া উপজেলার হেবারন মিশন চত্বরে এই ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার রাতে চকরিয়া উপজেলার খ্রিস্টান মিশনারী হেবরন মিশন প্রাঙ্গণে একটি রাজনৈতিক দলের অনুষ্ঠান চলাকালে তাকে ধর্ষন করা হয়। ঘটনার পর প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তারা অসুস্থ এই ছাত্রীকে উদ্ধার করে লামা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে পরে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বান্দরবান সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

লামা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল বলেন, গ্রেফতারকৃত শিমু বড়ুয়া লামা পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের বাদল বড়ুয়ার সন্তান।

আরো জানা গেছে, ছাত্রীটি হেবরন মিশনের আবাসিকে থেকে জেলার লামা সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনীতে পড়ালেখা করতো। ছাত্রীটির জুমচাষী পরিবার জেলার লামা উপজেলার গজালিয়া ইউনিয়নে বসবাস করে।

ছাত্রাবাসের সুপারিনটেনডেন্ট মিনতি ত্রিপুরা সাংবাদিকদের বলেন, আমরা এই ঘটনার দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করছি, যাতে এই ধরণের ঘটনা সংঘটিত করার কেউ সাহস না দেখায়।

এদিকে এই ঘটনায় খ্রিস্টান মিশনারী ছাত্রাবাসে থাকা দেড়শতাধিক শিক্ষার্থীর মাঝে আতংক ছড়িয়ে পড়েছে, তাদের অভিবাবকরা ঘটনার পর নিজেদের সন্তানদের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে।

এই ব্যাপারে লামা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আপ্পেলা রাজু নাহা বলেন, এই ঘটনায় ছাত্রীর অভিবাবক কক্সবাজারের চকরিয়া থানায় মামলা দায়ের করলে শনিবার অভিযান চালিয়ে শিমু বড়ুয়াকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এদিকে হিল উইমেন্স ফেডারেশন (এইচডব্লিউএফ)-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি নিরূপা চাকমা ও সাধারণ সম্পাদক মন্টি চাকমা আজ শনিবার এক বিবৃতিতে ত্রিপুরা কিশোরীকে ধর্ষণের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে এবং ধর্ষণকারীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছে।

আরও পড়ুন
Loading...