বান্দরবানের লামায় গ্রেফতার ৭

বান্দরবানের লামা উপজেলায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে দায়েরকৃত দুই মামলার ৭ আসামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নাশকতা মূলক কর্মকান্ডের পরিকল্পনা, ধর্মীয় উস্কানী মূলক বিভিন্ন বই প্রচার, প্রকাশ ও সরকারকে উৎখাত আন্দোলনের পরিকল্পনা করার অভিযোগে এ মামলা করা হয়।
গত মঙ্গল, বুধ ও বৃহস্পতিবার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, লামা পৌরসভার বাজার পাড়ার বাসিন্দা মৃত ফসিউল আলমের ছেলে শাফায়েত হোসেন রাসেল (৩০), ফখরুল ইসলামের ছেলে মনিরুল ইসলাম তুহিন (২১), নয়াপাড়ার বাসিন্দা আবদুল মোনাফের ছেলে মাহাবুবুর রহমান (২১), মৃত জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে মো. ফরহাদুল ইসলাম (২৮), আজিজনগর ইউনিয়নের ওয়াহেদ পাড়ার বাসিন্দা মৃত রহমান সিকদারের ছেলে আব্দুল ওহাব (৩৫), গজালিয়া ইউনিয়নের আটমাইল মুসলিম পাড়ার বাসিন্দা আবদুল কাদেরের ছেলে মো. হানিফ (৪০), ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের ইয়াংছা এলাকার বাসিন্দা মৃত জহির আহমদের ছেলে এহেছান (৩২)।
ইতিমধ্যে শাফায়েত হোসেন রাসেল, মো. ফরহাদুল ইসলাম, আব্দুল ওহাব ও মো. হানিফ ৪ জনকে গত ২০১৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর লামা থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনের দায়ের করা মামলা নং-৩ এর আসামী দেখিয়ে লামা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে প্রেরণ করলে আদালত তাদেরকে জেলহাজতে পাঠিয়েছে বলে জানান মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশের উপ-পরিদর্শক তমেজ উদ্দিন।
এদিকে থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) লিয়াকত আলী জানান, মাহাবুবুর রহমান, মনিরুল ইসলাম তুহিন ও এহেছান গত বুধবার বিশেষ ক্ষমতা আইনের দায়ের করা মামলার আসামী (মামলা নং ০৩/০৯, তারিখ- ৭/২/২০১৮ইং)। এছাড়া এ মামলায় মোট ৩২ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত নামা আরও ২৫ জন আসামী রয়েছে।
এদিকে, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ের দিনকে কেন্দ্র করে উপজেলায় যে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে সতর্ক অবস্থায় ছিল পুলিশ ও বিজিবি সদস্যরা। অপরদিকে গত কয়েকদিন যাবৎ পুলিশের ধরাপাকড়াও ও মামলার কারণে ইতিমধ্যে বিএনপি জামায়াতের অধিকাংশ নেতাকর্মী এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে জলে জানা গেছে।
দুই মামলায় ৭ জনকে গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করে লামা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, এলাকার আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় কাজ করছে পুলিশ।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।