বান্দরবানের ৭ উপজেলায় জাতীয় শোক দিবস পালন

বান্দরবানে শোক দিবসের র‌্যালিতে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপি
বান্দরবানের ৭টি উপজেলায় বিভিন্ন কর্মসূচীর মধ্যে দিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২ তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। আর এ নিয়ে আমাদের উপজেলা প্রতিনিধিদের পাঠানো প্রতিবেদন।
মঙ্গলবার ভোরে জেলা শহরের বঙ্গবন্ধু মুক্ত মঞ্চে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণের মধ্য দিয়ে শোক দিবসের কর্মসূচীর সূচনা করা হয়। পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপি প্রথম বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন। পরে জেলা প্রশাসন, জেলা পরিষদ, পুলিশসহ অন্যান্য সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও রাজনৈতিক সংগঠনগুলোর পক্ষ থেকে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়।
পরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক দিলীপ কুমার বণিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপি। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায়, জেলা পরিষদের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা শহিদুল আলম, আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য কাজল কান্তি দাশ, জেলা পরিষদের সদস্য লক্ষীপদ দাশ, সিভিল সার্জন ডা. অংশৈ প্রমুখ।
সমাবেশে প্রধান অতিথি প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপি বলেন, বঙ্গবন্ধুর কারনে আমার স্বাধীন বাংলাদেশ পেয়েছি, বাঙ্গালি যতদিন থাকবে বঙ্গবন্ধু ততদিন থাকবে। শেখ মুজিবুর রহমান একটি চেতনার নাম। যা হত্যার মাধ্যমে শেষ করে দিতে চেয়েছিল ৭৫ এর ঘাতকরা কিন্তু বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষের নিঃশ্বাসের সাথে জড়িয়ে রয়েছে বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমান।
এদিকে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে পার্বত্য জেলা পরিষদের সভা কক্ষে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ আলোচনা সভার আয়োজন করে।

লামা
জাতীয় শোক দিবস পালন করেছে বান্দরবানের লামা উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। এ উপলক্ষ্যে সোমবার সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে উপজেলার সকল সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও বেসরকারি ভবনগুলোতে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত উত্তোলন করা হয়। পরে উপজেলা প্রশাসনের ব্যানারে এক শোক র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিতে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান থোয়াইনু অং চৌধুরী নেতৃত্ব দেন।

লামায় উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক শোক র‌্যালি বের করা হয়
এতে স্কুল, মাদ্রাসা, কলেজের দুই শতাধিক শিক্ষার্থীসহ সরকারী বেসরকারী বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারী, রাজনৈতিক, সামাজিক সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ ও শিক্ষকবৃন্দ অংশ গ্রহন করেন। র‌্যালিটি শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে স্থানীয় টাউন হল মিলনায়তনে গিয়ে এক আলোচনা সভায় মিলিত হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার খিনওয়ান নু’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান থোয়াইনু অং চৌধুরী। এতে পৌরসভা মেয়র মো. জহিরুল ইসলাম, সহকারি পুলিশ সুপার মাহাবুবুর রহমান, সহকারি কমিশনার (ভূমি) সায়েদ ইকবাল, কৃষি কর্মকর্তা মো. নুরে আলম, প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. জুয়েল মজুমদার, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আনোয়ার হোসেন, প্রেসক্লাব সভাপতি প্রিয়দর্শী বড়ুয়া বিশেষ অতিথি ছিলেন।

রোয়াংছড়ি
মঙ্গলবার সকাল ১০টায় রোয়াংছড়ি উপজেলায় আওয়ামীলীগ আয়োজিত শোক দিবস উপলক্ষে রোয়াংছড়ি বাজারস্থা মাল্টিপারপাস প্রাঙ্গন থেকে ২শতাধিক নেতাকর্মী অংশগ্রহণে মাধ্যমে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়ে প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে এসে শেষ হয়। এরপর রোয়াংছড়ি বাজারস্থ মাল্টিপারপাস মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

রোয়াংছড়িতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করছে আওয়ামী লীগ নেতারা।
এতে উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি চহ্লামং মারমা সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বান্দরবান জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক হ্লাথোয়াইহ্রী মারমা। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহ সভাপতি চহাইমং মারমা,আলেক্ষ্যং ইউপির চেয়াম্যান বিশ্বানাথ তঞ্চঙ্গ্যা,যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক রামশিয়াম বম,সাংগঠনিক সম্পাদক জনমজয় তঞ্চঙ্গ্যা,সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা দৈনিক মানবকণ্ঠ সাংবাদিক মংখিংসাই মারমা,সাংগঠনিক সম্পাদক মো: আব্দুর রহিম সোবহান,উপজেলা শ্রমিকলীগে সভাপতি আথুইমং মারমা,উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি প্রীতিময় তঞ্চঙ্গ্যা,উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগ সভানেত্রী অংম্রাচিং মারমা প্রমুখ।

নাইক্ষ্যংছড়ি
হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষে আয়োজিত বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।

নাইক্ষ্যংছড়ির বাইশারীতে শোক র‌্যালি
আলোচনা সভায় উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মো. কামাল উদ্দিন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস.এম সরওয়ার কামাল, পার্বত্য বান্দরবান জেলা পরিষদের সদস্য ও উপজেলা আ’লীগের আহবায়ক মাষ্টার ক্যউচিং চাক, থানা অফিসার্স ইনচার্জ এইচ.এম তৌহিদ কবির, পার্বত্য বিষয়ক প্রতিমন্ত্রির বিশেষ প্রতিনিধি আলহাজ্ব খাইরুল বাশার, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন আহব্বায়ক মোঃ আবু তাহের, সদর ইউপি চেয়ারম্যান তসলিম ইকবাল চৌধুরী, সদস্য সচিব মোঃ ইমরান মেম্বার, সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ তারেক রহমান, কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দীন মামুন শিমুলসহ বিভিন্ন প্রশাসনিক কর্মকর্তা এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে সকাল আটটায় উপজেলা প্রশাসন কার্যালয় থেকে পৃথক পৃথক ব্যানারে শোক র‌্যালী বের হয়ে প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করেন এবং উপজেলা পরিষদ, উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ বিভাগ এবং উপজেলা আওয়ামীলীগসহ দলের অঙ্গসংগঠনগুলোর পক্ষে থেকে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন।

রুমা
যথাযোগ্য মর্যাদায় রুমা উপজেলা প্রশাসন ও বিভিন্ন রাজনৈতিকসহ সামাজিক প্রতিষ্ঠানগুলোর পৃথক পৃথক কর্মসূচির গ্রহণের মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধু’ র শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২তম শাহাদত প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়।

রুমা উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে শোক দিবসের আলোচনা সভা
১৫ আগস্ট উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সকাল আটটায় শোক র‌্যালি বের হয়। পরিষদ মিলনায়তনে শেষ হবার পর সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান অংথোয়াইচিং মারমা, সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ শরিফুল হক,
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মুস্তাফিজুর রহমান, রুমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম, রুমা সাংগু কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শৈপরুচিং মার্মা, আওয়ামীলী লীগের সভাপতি উহ্লাচিং মারমা প্রমুখ।
আরো উপস্থিত ছিলেন ২নং রুমা সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শৈমং মার্মা সহ উপজেলার শিক্ষক-শিক্ষিকা ছাত্র-ছাত্রীসহ অত্র উপজেলায় নানা পেশাদার গণ্যমান্য ব্যক্তি উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে বান্দরবানের থানচি উপজেলায় বিভিন্ন কর্মসূচীর মধ্যে দিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২ তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।