বান্দরবানে অনুমোদন ছাড়াই গড়ে উঠছে নিউ মার্কেট

বান্দরবান শহরের স্টেডিয়ামের পাশে কপিল প্রপার্টিজ এন্ড বিল্ডার্স লিমিটেড নির্মান করছে নিউ মার্কেট
বান্দরবানে সরকারি বিধি ভঙ্গ করে একের পর এক বহুতল ভবন নির্মাণ করছেন মালিকরা। এসব ভবন করার ক্ষেত্রে পৌরসভা, জেলা প্রশাসন ও ফায়ার সার্ভিসের কাছ থেকে নকশা অনুমোদনের কথা থাকলেও তা অনেক ক্ষেত্রেই মানা হচ্ছে না। ত্রুটিযুক্ত এসব ভবনে যে কোনো সময় ঘটতে পারে দুর্ঘটনা। আইনি জটিতলায় ভবন মালিকদের বিরুদ্ধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহন করতে পারছে না স্থানীয় প্রশাসন।
সূত্রে জানা যায়, বান্দরবান শহরের ইসলামী শিক্ষা কেন্দ্রের কাছ থেকে ভূমি ক্রয় করে জেলা শহরের ইস্টেডিয়ামের পাশে ৪০ শতক জায়গার উপর কপিল প্রপার্টিজ এন্ড বিল্ডার্স লিমিটেড নির্মান করছে অত্যাধুনিক নিউ মার্কেট। নির্মান শ্রমিকরা ৭তলা বিশিষ্ট ভবনটির নির্মানের জন্য করছে পাইলিং। পাইলিং করার ভারি যন্ত্রপাতি বসানো হয়েছে, দিনে রাতে কাজ চলছে সমানতালে। টিন দিয়ে ঘেরা জায়গাটিতে সবার প্রবেশ নিষিদ্ধ। আর এই নিষিদ্ধতার আড়ালে করা হচ্ছে অনুমোদনহীন এই বহুতল ভবন নির্মানের কাজ।
এই ব্যাপারে শহরের ৬ নং পৌর কমিশনার শেখর দাশ বলেন, কোন প্রকার অনুমোদন ছাড়ায় এরা কিভাবে বহুতল ভবনের নির্মানের কাজ শুরু করেছে বুঝতে পারছিনা।
আরো জানা গেছে,পুলিশ গত ২৭ মার্চ ও ৩ এপ্রিল দুই দফায় ভবনটির নির্মান কাজ বন্ধ করে দিলেও তারা প্রশাসনের নাম বিক্রি করে ফের কাজ শুরু করেছে। পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী মংসুখই মার্মা স্বাক্ষরিত এই ব্যাপারে দুই দফায় কাজ বন্ধ রাখার নোটিশ দেওয়া হয়,তারপরও ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে নির্মান কাজ অব্যাহত রেখেছে প্রতিষ্ঠানটি। ক্ষোধ জেলার প্রধান ইস্টেডিয়ামের প্রবেশ দ্বার ও গ্যালারির পাশে অনুমোদনহীন এই ভবন নির্মান করার কারনে স্টেডিয়ামের মতো গুরত্বপূর্ন স্থাপনাটির নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে স্থানীয় ক্রিড়ামোদীদের মধ্যে।
এই ব্যাপারে নিউ মার্কেট নির্মান কাজের কেয়ার টেকার নাসির উদ্দিন বলেন, আমাদের ভবনটি নির্মানের অনুমোদন আছে। তবে প্রতিবেদককে অনুমোদনের কোন কাগজপত্র দেখাতে পারেনি তিনি।
বান্দরবান শহরের স্টেডিয়ামের পাশে নজরকারা বিলবোর্ড দিয়ে কপিল প্রপার্টিজ এন্ড বিল্ডার্স লিমিটেড নির্মান করছে নিউ মার্কেট
ফায়ার সার্ভিসের একজন পরিদর্শক নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ভবন মালিকরা আইন মানছেন না। পৌরসভা থেকে নকশা অনুমোদনের পর সেই নকশা ভবন মালিকরা ফায়ার সার্ভিসের অফিসে জমা দেবে। এরপর ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা নকশা অনুমোদনের পরই ভবন নির্মাণ করতে পারবেন মালিকরা। এই ক্ষেত্রে তারা ফায়ার সার্ভিসের অনুমোদনের প্রয়োজন মনে করেনি।
এই ব্যাপারে নির্মানাধীন নিউ মার্কেট এর মালিক মো: জসিমের সাথে একাধিকবার ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেনি।
গণপূর্ত বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ইমারত নির্মাণ আইন ও বিধিমালা অনুযায়ী বান্দরবান পৌরসভার নগর পরিকল্পনা কর্মকর্তারা নকশা পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর বহুতল বা পাকা ভবন নির্মাণের অনুমোদন দেয়। এছাড়া উপজেলা বা ইউনিয়ন পর্যায়ে জেলা গণপূর্ত বিভাগের সুপারিশে জেলার ন্যাশনাল বিল্ডিং কোড কমিটি বহুতল ভবন নির্মাণের অনুমোদন দেয়। কিন্তু বান্দরবানের চিত্র সম্পূর্ণ ভিন্ন, প্রভাবশালীরা অনুমোদন ছাড়াই শুরু করে নির্মান কাজ।
এই ব্যাপারে পৌর মেয়র ইসলাম বেবী বলেন, প্রপার্টিজ এন্ড বিল্ডার্স লিমিটেড কাগজপত্র আমাদের জমা দিয়েছে, তবে কোন ধরণের অনুমোদন পায়নি।
প্রসঙ্গত,বান্দরবানের মাটিতে আর্গানিক পদার্থের উপস্থিতি এই অঞ্চলের মাটিকে ভূমিকম্পের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ করে তুলেছে। বান্দরবানসহ অপর দুই পার্বত্য জেলা ভূমিকম্পের জন্য অতি ঝুঁকিপূর্ন এলাকা বিবেচিত হওয়ায় বান্দরবানে ৭ তলার উপর ভবন নির্মানের অনুােদন প্রদান করেনা পৌরসভা।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।