বান্দরবানে আষাঢ়ী পূর্ণিমা উদযাপন

বৌদ্ধ ধর্মের প্রবর্তক মহা মানব গৌতম বুদ্ধের জন্ম, বুদ্ধত্ব লাভ ও মহাপরিনির্বাণ এই ত্রি-স্মৃতি বিজড়িত আষাঢ়ী পূর্ণিমা পালন করছে বৌদ্ধ সম্প্রদায়।

আষাঢ়ী পূর্ণিমা উপলক্ষ্যে বান্দরবানের বৌদ্ধ বিহারগুলো সাজানো হয়েছে বর্ণিল সাজে,আর করোনার কারণে অনুষ্টানমালা সীমিত করে সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত করে শত শত ভক্তের আগমনে মুখরিত হচ্ছে দিনটি।

আষাঢ়ী পুর্ণিমা উপলক্ষে বৌদ্ধ ধর্মালম্বী পরিবারে বইছে আনন্দের বন্যা। বান্দরবানের খিয়ং ওয়া কিয়ং রাজবিহার, কেন্দ্রীয় সার্বজনীন বৌদ্ধ বিহার, কালাঘাটা আম্র কানন গৌতম বৌদ্ধ বিহার, বালাঘাটা বৌদ্ধ বিহার,উজানী পাড়া মহা বৌদ্ধ বিহারসহ বিভিন্ন বৌদ্ধ বিহারে চলছে প্রার্থনা, চীবরদান, গুরু ভক্তি, ছোয়াইং প্রদান (ভান্তেদের খাবার দান) প্রদীপ প্রজ্জলন, বোধিবৃক্ষমূলে চন্দন জল সিঞ্চন, বুদ্ধ মুর্তি স্মান সহ নানান ধর্মীয় আয়োজন।

২৩ জুলাই (শুক্রবার) সকালে বান্দরবানের বৌদ্ধ বিহারে উপস্থিত হয়ে প্রার্থনায় অংশ নেন বোমাং রাজা উ চ প্রু,পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য কে এস মং, পার্বত্য জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মংক্যচিং চৌধুরী, সাবেক সদস্য লুসাই মং মারমাসহ বৌদ্ধ ধর্মালম্বীরা।

এসময় খিয়ং ওয়া কিয়ং রাজবিহার এর বিহারাধ্যক্ষ উ কেতু মহাথের ধর্মীয় দেশনা প্রদান করেন পাশাপাশি উজানীপড়া রাজগুরু মহা বৌদ্ধ বিহারের বিহারাধ্যক্ষ ড.সুবন্নলংকারা মহাথের ধর্মীয় দেশনা প্রদান করেন।

আষাঢ়ী পুর্ণিমা উপলক্ষে তিনমাস বর্ষাবাস পালন করবে বৌদ্ধ ধর্মালম্বীরা, এসময় সংযম পালনের মধ্য দিয়ে ন্যায়, সৎ পথে চলা, বুদ্ধের জীবনানুসারন ও পরোপকারে তিনমাস অতিক্রম করবে প্রতিটি বৌদ্ধ ধর্মালম্বী পরিবার।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।