বান্দরবানে ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) এর ৪র্থ প্রতিষ্টাবার্ষিকী উদযাপন

“পার্বত্য চট্টগ্রামের নিরীহ জন্মুদের নিয়ে বিভেদ পন্থীদের নব্য ষড়যন্ত্র প্রতিহত করে পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়নের সংগ্রামে ঐক্যবদ্ধ হোন” এই শ্লোগানকে সামনে নিয়ে বান্দরবানে আঞ্চলিক দল ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রটিক ফ্রন্ট (গণতান্ত্রিক) দলের এর ৪র্থ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন করা হয়েছে।

আজ সোমবার (১৫ নভেম্বর) সকালে বান্দরবান শহরের হিলভিউ কনফারেন্স হলে এই প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন করে দলের নেতাকর্মীর। অনুষ্ঠানের জাতীয় সংগীতের সাথে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন এর মাধ্যমে শুরু হয় ৪র্থ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর আয়োজন। এসময় সংগঠন প্রতিষ্ঠা ও ষড়যন্ত্রকারীদের বুলেটের আঘাতে আত্মত্যাগীদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এরপরে শুরু হয় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে এক আলোচনা সভা।

ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (গণতান্ত্রিক) বান্দরবান জেলা শাখার সভাপতি মংপ্রু মারমা (হেডম্যান) এর সভাপতিত্বে এসময় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (গণতান্ত্রিক) এর কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক অমর চাকমা। এসময় কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আপ্রুমং মারমা,পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক রয়েল চাকমা, ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (গণতান্ত্রিক) বান্দরবান জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক উবামং মারমা ,টাইগার পাড়ার কারবারী বীর কুমার তংচঙ্গ্যা, পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক সুবীর চাকমা,পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ বান্দরবান জেলার সভাপতি উচিং মারমা, ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (গণতান্ত্রিক) এর কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সুলেন চাকমা সহ ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (গণতান্ত্রিক) এর বান্দরবান জেলা ও উপজেলার নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এসময় সভায় বক্তারা বলেন,পার্বত্য চট্টগ্রামের নিরীহ জন্মুদের নিয়ে বিভেদ পন্থীদের নব্য ষড়যন্ত্র সবাইকে মিলে প্রতিহত করতে হবে। পার্বত্য এলাকার শান্তি শৃংখলা ও উন্নয়নের স্বার্থে পার্বত্য শান্তিচুক্তি বাস্তবায়নের সংগ্রামে সবাই ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

বক্তারা এসময় আরো বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকা একসময় অশান্ত ছিল। আওয়ামীলীগ সরকার পার্বত্য চট্টগ্রামের সমস্যাকে রাজনৈতিক সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত করে দীর্ঘ আলাপ আলোচনার মাধ্যমে ১৯৯৭ সালের ২রা ডিসেম্বর পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির সাথে ঐতিহাসিক পার্বত্য শান্তিচুক্তি স্বাক্ষর করে কিন্তু দু:খের বিষয় পার্বত্য শান্তিচুক্তি এখনো পূর্ণাঙ্গভাবে বাস্তবায়ন করা হয়নি, তাই অবিলম্বে পার্বত্য শান্তিচুক্তি বাস্তবায়ন করার জন্য সরকারের কাছে আমরা দাবি জানাই।

এসময় প্রধান অতিথি অমর চাকমা বলেন, দীর্ঘ ২যুগ পার্বত্য চট্টগ্রামে ১১টি জাতিসত্তা সহ বাঙালীরা সব সময় আতংকে অশান্তিতে ছিল। কতো খুন, গুম, অপহরণ হয়েছিল তার কোন হিসাব নেই। অস্ত্রের ঝনঝনানি ছিল আর ১৯৯৭ সালে আওমামী লীগ সরকার পার্বত্য শান্তি চুক্তি করে পার্বত্য অঞ্চলে শান্তি প্রতিষ্টা করেছিলেন। আমরা আর অশান্তি, হানাহানি চাইনা, আমরা পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তি চাই, শান্তিতে বসবাস করতে চাই। এসময় তিনি পার্বত্য শান্তিচুক্তি বাস্তবায়নে সরকারকে সার্বিক সহযোগীতা করার জন্য ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (গণতান্ত্রিক)দলের সদস্যরা সবসময় প্রস্তুুত রয়েছে।

এসময় তিনি আরো বলেন,পার্বত্য চট্টগ্রামে যতদিন নিপীড়িত জনতার মুক্তি আসবেনা ততোদিন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রটিক ফন্ট (গণতান্ত্রিক) আন্দোলন সংগ্রাম চালিয়ে যাবে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।