বান্দরবানে ইয়াবাসহ পুলিশ কনস্টেবল গ্রেফতার

বান্দরবানে ইয়াবাসহ মোঃ কামাল (৩২) নামে এক পুলিশ কনস্টেবলকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

সোমবার (১৫ নভেম্বর) রাতে বান্দরবান পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের বালাঘাটা ভরাখালির গোদারপাড় এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর বান্দরবান জেলা কার্যালয় এর বিশেষ অভিযানে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

সুত্রে জানা যায়, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর,বান্দরবান জেলা কার্যালয় এর সহকারী পরিচালক মোঃ বাবুল সরকার এর সার্বিক দিক নির্দেশনায় চলমান মাদক বিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে পরিদর্শক মোঃ আলমগীর পাশার নেতৃত্বে ১৫ই নভেম্বর (সোমবার) রাতে বান্দরবান পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের বালাঘাটা ভরাখালির গোদারপাড় এলাকা থেকে ইয়াবাসহ এক ব্যবসায়িকে গ্রেফতার করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর বান্দরবান জেলা কার্যালয় এর টিম।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর,বান্দরবান জেলা কার্যালয় এর সহকারী পরিচালক মোঃ বাবুল সরকার জানান, মোঃ কামাল (৩২) নামে এক পুলিশ সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার কাছ থেকে ১ হাজার ২০০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত ইয়াবার আনুমানিক বাজার মূল্য ৩ লক্ষ ৬০হাজার টাকা। গ্রেফতারের পর আসামীকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে বান্দরবান সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়। প্রাথমিক জিঙ্গাসাবাদে তিনি একজন পুলিশ কনস্টেবল এবং বর্তমানে তিনি বান্দরবান কোর্ট পুলিশের দায়িত্বে কর্মরত রয়েছেন বলে জানান।

এদিকে পুলিশের এক কনস্টেবল ইয়াবাসহ গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বান্দরবান সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: শহিদুল ইসলাম চৌধুরী জানান, আসামীর বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং তাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন
1 মন্তব্য
  1. suman বলেছেন

    পুলিশ সদস্য যে কর্মকান্ডে ধরা পড়েছে তা অবশ্যই জঘন্য এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ। কিন্তু ট্রাফিক মোড়, রোয়াংছড়ি স্টেশন মোড়, বাস স্টেশন এলাকা ও বিভিন্ন পয়েন্টে এই সব বাহিনী সদস্যরা যে প্রতিটি সিএনজি ও বহিরাগত যানবাহন হতে অন্যায়ভাবে নিয়মিত মোটা অংকের চাঁদা আদায় করছে তারও একটি বিহীত ব্যবস্থা গ্রহন করা দরকার। কিন্তু করবে কে? তাদের কার্যক্রম এবং চাঁদাবাজিতে তৎপরতা দেখলে মনে হয় এ কার্যক্রমগুলো অলিখিত এবং মৌখিকভাবে স্বীকৃত।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।