বান্দরবানে গঙ্গা পূজা ও বারুনী স্নান অনুষ্ঠিত

বান্দরবানে সনাতনী সম্প্রদায়ের গঙ্গা পূজা ও বারুনী স্নান অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ ৩০মার্চ (বুধবার) সকালে বান্দরবানের আশীর্বাদ সংঘ এর আয়োজনে সাঙ্গু নদীর তীরে এই আয়োজনের শুরু হয়।

অনুষ্ঠানে গঙ্গা পূজা, মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জ্বলন, ভজন র্কীতন, মহাপ্রসাদ আস্বাদন, গঙ্গা গৌর আরতি, হাজার প্রদীপ প্রজ্জলনসহ নানা ধর্মীয় আচার অনুষ্টানের আয়োজন করা হয়।

এইসময় ভোর থেকেই সনাতনী সম্প্রদায়ের শতশত পূর্ণার্থীরা সাঙ্গু নদীতে গঙ্গা মায়ের চরনে ভক্তি নিবেদন করে পাপ মুক্তির আশায় নদীর স্বচ্ছ পানিতে নেমে বারুনী স্নানে অংশ নেয়। জেলা ও উপজেলার বিভিন্ন দুর্গম এলাকার শত শত সনাতন ধর্মালম্বী নর-নারী নদীতে গঙ্গা স্মানের পাশাপাশি গঙ্গা মায়ের জন্য পূজা ও নিবেদন করে। নদীতে পূজা দেয়ার পাশপাশি মোমবাতি ও আগরবাতি জ্বালিয়ে অনেকে গঙ্গা দেবীকে প্রণাম নিবেদন করে।

এদিকে গঙ্গা পূজা ও বারুনী স্নান উপলক্ষে পূজাস্থলে চলছে মহানাম সংকীর্তন আর এই উপলক্ষে দেশের নানা প্রান্ত থেকে ভ্রাম্যমান ব্যবসায়ীরা নদীর চরে পসরা সাজিয়ে বসেছে বেচাবিক্রির জন্য।

বান্দরবানের আশীর্বাদ সংঘ এর সভাপতি সুমন দাশ বলেন, প্রতি বছর মধুকৃষ্ণা এয়োদশীর তিথিতে মহাপূন্য লগ্নে সনাতনী সম্প্রদায়ের মঙ্গল কামনায় এই গঙ্গা পূজা ও বারুনী স্নানের আয়োজন করি আমাদের সংগঠনের পক্ষ থেকে আর আমাদের সার্বিক সহযোগিতা করে প্রশাসন।

তিনি আরো বলেন, এই পুর্ণ্য তিথিতে গঙ্গাস্নান করলে সকল প্রকার পাপ মোচন হয় বলে সনাতন ধর্মালম্বীরা বিশ্বাস করে থাকে। গঙ্গা পূজা ও বারুনী স্নান উপলক্ষে আমরা এবার ৩দিন নদীর চরে বিভিন্ন অনুষ্টানমালার আয়োজন করেছি এবং আশাকরি সফলভাবে এবারের সব আয়োজন সমাপ্তি হবে।

৩০ মার্চ (বৃহস্পতিবার) সকালে পুষ্পাঞ্জলী ও প্রতিমা নিরঞ্জনের মাধ্যমে তিনদিনব্যাপী এই গঙ্গা পূজা, বারুণী স্মান ও গঙ্গা আরতির সমাপ্তি হবে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।