বান্দরবানে চলতি বছরে ৭৪টি অগ্নিকান্ড

বান্দরবান জেলার ৭টি উপজেলায় চলতি বছরে ৭৪টি অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। আর এসব ঘটনায় সরকারী ভাবে মাত্র সাড়ে ৩৬ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানানো হলেও বেসরকারী ভাবে এই ক্ষয়ক্ষতির পরিমান কমপক্ষে ১৫ কোটি টাকা।

বান্দরবান ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক কামাল উদ্দীন ভূইয়া জানান, বান্দরবান জেলায় গতবছরের ১ ডিসেম্বর থেকে চলতি বছরের নভেম্বর পর্যন্ত ৭৪টি অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। একবছরে ঘরবাড়ি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় সাড়ে ৩৬ লক্ষ টাকার সম্পদের ক্ষতি হয়েছে।

তিনি আরো জানান, দমকলকর্মীদের চেষ্টায় অগ্নিকান্ডের ধংসস্থুপ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে প্রায় আড়াই কোটি টাকার সম্পদ।

এই ব্যাপারে স্থানীয় সাংবাদিক কৌশিক দাশ বলেন, ফায়ার সার্ভিসের তথ্য সঠিক নয়, আমাদের প্রাপ্ত তথ্য মতে চলতি বছরে জেলায় অগ্নিকান্ডে ক্ষতি কয়েকগুন বেশি।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরে বান্দরবান জেলায় সড়কসহ অন্যান্য দুর্ঘটনায় ঘটেছে ১৫টি। এসব দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন ২০ জন, নিহত হয়েছে ৪ জন। তবে বেসরকারী হিসাবে নিহতের সংখ্যা অন্তত ১৫জন।

আরো জানা গেছে, গত ২৯ জানুয়ারি জেলার রোয়াংছড়ি বাজারে ১টি বসত ঘর ও ৭টি দোকান আগুনে যায়। জেলায় সবচেয়ে বড় অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে ২৭ এপ্রিল। এদিন থানচি বাজারে আগুনে ২০৫টি দোকান পুড়ে যায়, এতে অন্তত ১০ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়।

অন্যদিকে গত ২১ আগস্ট জেলা শহরের পূরবী বার্মিজ মার্কেটে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে পুড়ে যায় ২২টি বার্মিজ পণ্যের দোকান। আর এই ঘটনায় প্রায় ৩ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবী করে ব্যবসায়িরা। গত ৫ নভেম্বর ভোরে থানচির মিয়ানমার সীমান্তবর্তী বড়মদক বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ২০টি দোকান পুড়ে যায়, এতে অর্ধ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়।

এই ব্যাপারে বান্দরবান ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক কামাল উদ্দীন ভূইয়া আরো বলেন, অগ্নিকান্ড, দুর্ঘটনা ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ প্রতিরোধ ও মোকাবিলায় মানুষের সচেতনতা আরও বাড়াতে হবে, আর সচেতনতা বাড়লেই এসব দূর্ঘটনা কমে আসবে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।