বান্দরবানে জমজমাট প্রচার-প্রচারণায় নিঘুর্ম প্রার্থীরা

আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারী চতুর্থ ধাপের বান্দরবান পৌরসভা নির্বাচনে অংশ নেয়া মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে। সকাল থেকে রাত অবধি বিভিন্ন পাড়া, মহল্লা আর বাড়ী বাড়ী গিয়ে ভোটারদের কাছে প্রার্থনা করছে একটি ভোটের জন্য।

পৌরসভা নির্বাচনে প্রার্থীদের প্রতিশ্রুতি আর প্রচার-প্রচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে পৌর এলাকা,পোস্টারে ছেয়ে গেছে শহরের অলি-গলিসহ সকল সড়ক। যেদিকে তাকানো যায় সেদিকেই চোখে পড়বে সারি সারি ঝুলানো পোস্টার।

করোনা আর শীতকে পিছনে ফেলে এগিয়ে চলেছে সকল প্রার্থীদের সমর্থনে প্রচার প্রচারণা। ভোটের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই বাড়ছে নির্বাচনী উত্তাপ। চায়ের স্টলসহ সকল জায়গাতেই চলছে প্রার্থীদের নিয়ে আলোচনা আর জল্পনা-কল্পনা।

মাইকিং ছাড়াও সোশ্যাল মিডিয়াতেও চালাচ্ছে অনেক প্রার্থীর সমর্থনে নির্বাচনী প্রচারনা। প্রার্থীরা স্থানীয় ভোটারদের সাথে গণসংযোগ এবং হ্যান্ডবিল বিলি ছাড়াও পৌরএলাকার রাস্তা-ঘাট,ড্রেনসহ যাবতীয় উন্নয়ন এবং পৌর নাগরিকদের দিচ্ছেন বিভিন্ন উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি।

নির্বাচনী প্রচারনায় আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী মোহাম্মদ ইসলাম বেবী। ছবি-পাহাড়বার্তা

এদিকে বান্দরবান পৌরসভা নির্বাচনে নৌকা প্রতীককে ভোট দিয়ে পুনরায় নির্বাচিত করে পৌরসভার অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করার আহবান জানিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন জেলা আওয়ামীলীগ দলীয় মেয়র প্রার্থী মোহাম্মদ ইসলাম বেবী। তিনি বলেন,বাংলাদেশের মানুষ এখনো আওয়ামী লীগকে ভালবাসে, তাই ১৪ ফেব্রুয়ারী ইভিএমের মাধ্যমে পৌরসভা নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে আবার জয়যুক্ত হয়ে পৌরসভার মেয়র হিসেবে নির্বাচিত হয়ে সাধারণ জনগণের উন্নয়ন করবো।

অপরদিকে,পৌরসভা নির্বাচনে ৯টি ওয়ার্ডের ১৩টি ভোট কেন্দ্রে সেনাবাহিনীর উপস্থিতি নিশ্চিত করা, প্রতি কেন্দ্রে সিসি ক্যামেরা বসানো, প্রতিকেন্দ্রে ১জন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রাখার জন্য নির্বাচন কমিশনের প্রতি দাবি জানান বান্দরবান পৌরসভার নির্বাচনে বিএনপি’র মেয়র পদ প্রার্থী মোহাম্মদ জাবেদ রেজা।

তিনি আরো বলেন,সুষ্ঠ নির্বাচনের লক্ষে ১২-১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বান্দরবানে বহিরাগতদের প্রবেশ বন্ধ রাখা ও আবাসিক হোটেল -মোটেল এবং পর্যটন কেন্দ্র বন্ধ রাখতে হবে তবে বান্দরবানে একটি সুষ্ঠ ভোট সম্পন্ন হবে এবং সাধারণ ভোটাররা ভোট কেন্দ্রে গিয়ে তাদের মুল্যবান ভোট দিতে পারবে।

শুধু আওয়ামী লীগ আর বিএনপি নয় এবার স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী বিধান লালা, স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন,জাতীয় পার্টির সমর্থিত মেয়র প্রার্থী মো:শাহজাহান বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি নিয়ে ভোটারদের মন জয় করার চেষ্টা করছেন সকাল থেকে রাত অবধি। ভোটারদের কাছে গিয়ে তারা দিচ্ছেন নানান প্রতিশ্রুতি আর দেখাছেন আগামী দিনের নানা সেবামুলক কর্মকান্ডের স্বপ্ন।

বান্দরবানের রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ রেজাউল করিম বলেন, ১৪ফেব্রুয়ারী অনুষ্ঠিত চতুর্থ ধাপের বান্দরবান পৌরসভা নির্বাচন ইবিএমের মাধ্যমে হবে এবং বান্দরবানে ৯টি ওয়ার্ডে ২৯ হাজার ৭শত ২৯জন ভোটার এতে অংশগ্রহণ করবে। রিটার্নিং কর্মকর্তা আরো বলেন,বান্দরবান পৌরসভা নির্বাচন যাতে সুষ্ঠ ও সুন্দরভাবে অনুষ্ঠিত হয় সেজন্য আমরা সার্বিক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি এবং আশাকরি আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারী একটি সুষ্ঠ ভোট উপহার দিতে পারবো।

এবার বান্দরবান পৌরসভা নিবার্চনে ৫জন মেয়র প্রার্থী,৭জন মহিলা সংরক্ষিত কাউন্সিলর এবং ২৯জন সাধারণ কাউন্সিলর নিবার্চনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। নির্বাচনে এবার ভোটার সংখ্যা ২৯ হাজার ৭শত ২৯ জন আর নয়টি ওয়ার্ডের ১৩টি কেন্দ্রে আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ইভিএম পদ্ধতিতে হবে এই ভোটগ্রহণ কার্যক্রম।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।