বান্দরবানে জুম চাষ গবেষণা শীর্ষক মাঠ দিবস

বান্দরবানে এন,পি,কে গুটি ও রাসায়নিক সার প্রয়োগের মাধ্যমে প্রতিবছর জুম চাষ গবেষণা শীর্ষক মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়েছে ।

আজ বৃহস্পতিবার (২৬সেপ্টেম্বর) সকালে সিআরপি হিল এগ্রিকালচার সাসটেইনএবল ম্যানেজমেন্ট এর আয়োজনে বান্দরবান কৃষি গবেষণা ফাউন্ডেশনের বাস্তবায়নে বান্দরবানের রামেরি পাড়ায় এই মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয় ।

শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের মৃত্তিকা বিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর ড. অলোক কুমার পালের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের বান্দরবান জেলার উপ পরিচালক ড.এ কে এম নাজমুল হক ।

এসময় বিশেষ অতিথি হিসবে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর মোহাম্মদ সাইফুল আলম ।

আরো উপস্থিত ছিলেন, বান্দরবান কৃষি গবেষণা ফাউন্ডেশনের বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো: জোনায়েত, হ্লা চানু মারমা ও সুজিত মারমা ।

এসময় বক্তারা জানান, কৃষি গবেষণা ফাউন্ডেশনের অর্থায়নে ডিবলিং পদ্ধতিতে এনপিকে গুটি ও রাসায়নিক সার প্রয়োগের মাধ্যমে একই জমিতে জুম চাষের সফলতা পাওয়া যাচ্ছে ।

বক্তারা আরো জানান, তিন পার্বত্য জেলায় ২০১৯ জুম মৌসুমে ৩৪০ জন কৃষককে আগাছানাশক, বীজ, সার, এনপিকে গুটি, কীটনাশক ও কৃষকের মজুরি দেওয়ার মাধ্যমে গবেষণা কার্যক্রম চালানো হচ্ছে ।

সার প্রয়োগের কারণে যেখানে গড়ে জুমের ফলন আসতো হেক্টর প্রতি ৩.৬ টন সেখানে এনপিকে গুটি প্রয়োগের মাধ্যমে তার বৃদ্ধি পেয়েছে হেক্টর প্রতি ৪.২ টন. বলে জানান বক্তারা ।

মাঠ দিবসে অর্ধ শতাধিক ক্ষুদ্র নৃ গোষ্ঠী চাষী, কৃষি কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন ।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।