বান্দরবানে নিখোঁজের ২০ দিন পর ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার : আটক ২

ফাইল ছবি
বান্দরবানের থানচি উপজেলায় মোহাম্মদ আইয়ুব (৫৫) নামে এক ফেরিওয়ালাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুবৃত্তরা । এ ঘটনায় আটক করা হয়েছে দুই যুবককে। আইয়ুব চট্টগ্রাম জেলার লোহাগাড়ার পশ্চিম কলাউজানের মৃত গোলাম সুবহানের ছেলে। সোমবার সকালে উপজেলার চমি পাড়ার কাছের একটি পাহাড়ি ঝিরি থেকে তার অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, গত পনের বছর ধরে তিনি জেলার থানচি উপজেলার বিভিন্ন দূর্গম পাড়ায় নানা ধরনের কসমেটিক ও চুড়ি ফিতা বিক্রি করে আসছিলেন। গত ১৪ মে চমি পাড়ায় মালামাল বিক্রি করে ফেরার পথে দুবৃত্তরা তাকে কুপিয়ে হত্যা করে। এ সময় তার কাছে থাকা বেশ কিছু অর্থ ছিনিয়ে নেয়। এই হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ চমি পাড়ার চাই অং পা ম্রো (৩০) ও তাইরাে ম্রো (২৪) নামের দুইজনকে আটক করেছে।
থানচি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জোবায়েরুল হক জানান, গত ১২ মে নিহত ফেরিওয়ালা মোহাম্মদ আইয়ুব ঘর থেকে বের হয়ে মালামাল বিক্রির উদ্দেশ্যে থানচির চমি পাড়ায় যায়। সেখানে ম্রো সম্প্রদায়ের একটি উৎসবে মালামাল বিক্রি করে সে। পরে ১৪ মে থেকে তার আর কোন খোঁজ পাচ্ছিল না পরিবারের সদস্যরা।
তিনি আরো জানান, তার ভাই মোহাম্মদ আক্কাস থানচি থানায় এসে নিখোঁজের অভিযোগ দেওয়ার পর পুলিশ সন্দেহভাজন চমি পাড়ার চাই অং পা ও তাইরু ম্রোকে আটক করে। তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ আজ সকালে চমি পাড়ার কাছে পাহাড়ি একটি ঝিরি থেকে নিহত ফেরিওয়ালার লাশ উদ্ধার করে। লাশ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্ত্রের জন্য বান্দরবান সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়।
এদিকে ঈদের আগে থানচিতে ব্যবসায়ি হত্যাকান্ডের ঘটনায় স্থানীয় ব্যবসায়িদের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে। এই ঘটনার পর পর্যটন উপজেলা থানচির বিভিন্ন দূর্গম বিনোদন কেন্দ্রে যেতে পর্যটকরা ভয় পাবেন বলে মনে করছে অনেকে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।