বান্দরবানে পরিবার কল্যাণ সেবা ও প্রচার সপ্তাহ শুরু

“পরিবার পরিকল্পনা, মা ও শিশু স্বাস্থ্যসেবা গ্রহণ করি,বাল্য বিয়ে এবং অনাকাঙ্খিত গর্ভধারণ রোধ করি” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে বান্দরবানে শুরু হয়েছে পরিবার কল্যাণ সেবা ও প্রচার সপ্তাহ।

সেবা ও প্রচার সপ্তাহ উপলক্ষে ১৯ ডিসেম্বর (রবিবার) সকালে বান্দরবান পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের আয়োজনে সদর উপজেলার সুয়ালক ইউনিয়নের ম্রো আবাসিক বিদ্যালয়ের সামনে হতে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়ে প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে সুয়ালক ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে এসে শেষ হয়। এসময় বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে সেবা ও প্রচার সপ্তাহ এর উদ্বোধন করা হয়।

পরে ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে এক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে বান্দরবান পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপ-পরিচালক ডা: অংচালু এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান একেএম জাহাঙ্গীর,পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য দুংড়ি মং মারমা,অতিরিক্ত সিভিল সার্জন ডা: মংটিং ঞো,পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের গবেষণা কর্মকর্তা ও ডিপিএম পীযুষ কান্তি দত্ত,জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো.কায়েসুর রহমান,ডিস্ট্রিক কনসালট্যান্ট ডা:মো: নুুরুছাফা চৌধুরী,উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (ভা:) ডা.মো: সালাউদ্দিন কাদের,সুয়ালক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান উক্যনু মারমাসহ পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও বিশেষজ্ঞ ডাক্তারগণ।

এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখতে গিয়ে জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি বলেন, কিশোর কিশোরীদের সুন্দরভাবে বেড়ে ওঠার জন্য অভিভাবকদের পাশাপাশি সমাজের জনপ্রতিনিধিদের দায়িত্ব অপরিসীম।

এসময় জেলা প্রশাসক আরো বলেন, বাল্য বিয়ে এবং অনাকাঙ্খিত গর্ভধারণ রোধ করার জন্য বেশি বেশি প্রচার প্রচারণা দরকার যাতে কোন কিশোরী বাল্যবিবাহের শিকার না হয় এবং অপরিনীত বয়সে গর্ভধারণ না করে। এসময় জেলা প্রশাসক সকল মা ও শিশুদের সু-স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার জন্য পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের নির্দেশনা প্রদান করেন।

সভাপতির বক্তব্য রাখতে গিয়ে বান্দরবান পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপ-পরিচালক ডা: অংচালু বলেন, পরিবার কল্যাণ সেবা ও প্রচার সপ্তাহ উপলক্ষে এবারে জেলার বিভিন্ন উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে পরিবার পরিকল্পনা পদ্ধতি সেবা, মা ও শিশুর স্বাস্থ্য সেবা, কিশোর-কিশোরী এবং সাধারণ রোগীদের সেবা এবং বিশেষ সেবা হিসেবে হাইজিন কিটস, মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ এবং জরায়ু মুখ ও স্তন ক্যান্সার পরীক্ষা সেবাসহ ৩০হাজার ৬শত ২৬জন রোগীকে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে সপ্তাহব্যাপী নানা সেবামূলক কর্মকান্ড পরিচালনা করা হবে।

এসময় ডা: অংচালু আরো বলেন, প্রতিবছরের মত আমরা এবারো ও বর্ণাঢ্য আয়োজনে সপ্তাহব্যাপী এই পরিবার কল্যাণ সেবা ও প্রচার সপ্তাহ পরিচালনা করবো এবং মা ও শিশুদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় নিয়মিত কাজ করে যাব।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।