বান্দরবানে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের চাউলও চেয়ারম্যানের পেটে !

ছবি তোলায় সাংবাদিককে মারধর

NewsDetails_01

বান্দরবানের লামায় ঈদ উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের জনপ্রতি ১০ কেজি ভিজিএফ চাউল বিতরণে কম দিয়ে আত্মসাথের অভিযোগে ছবি ও ভিডিও ধারণ করায় চেয়ারম্যানের হামলায় এক সাংবাদিক আহত হয়েছে। এসময় এই সাংবাদিকদের ২টি মোবাইল ও আইডি কার্ড ছিনিয়ে নেয়। আজ শনিবার বেলা ১১টায় লামার আজিজনগর ইউনিয়ন পরিষদ চত্ত্বরে এই ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আজ শনিবার সকাল ১০টা থেকে ইউনিয়নটিতে ১২শ মানুষকে ভিজিএফের চাউল বিতরণ শুরু হয়। সরকারি নিয়মে জনপ্রতি ১০কেজি করে চাউল দেওয়ার কথা থাকলেও না মেপে বালতি করে ৭-৮ কেজি ভিজিএফের চাউল বিতরণ করা হয়। যারা চাউল নিয়েছে তারা চাউল নেওয়ার পর নিজেরা বাইরে মেপে দেখে চাউল কম।

আজিজনগর ইউনিয়ন পরিষদে চাউল বিতরণ করা হচ্ছে। ছবি-পাহাড়বার্তা

এই বিষয়ে আজিজ নগরের স্থানীয় বাসিন্দা আব্দুর রশিদ বলেন, প্রধানমন্ত্রীর উপহারের চাউল দশ কেজি করে পাওয়ার কথা থাকলেও পরে চাউল মেপে দেখি ৮ কেজির মতো হবে।

আরো জানা গেছে, এই অভিযোগ স্থানীয়রা সাংবাদিকদের জানালে সাংবাদিকরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ভিজিএফের চাউল কম দেওয়ার ছবি ও ভিডিও করে। এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে ইউনিয়নটির চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন সাঙ্গু পত্রিকার সাংবাদিক বেলাল আহম্মদকে অশালিন ভাষায় গালাগালি করে, পরে তার ক্যাডার স্থানীয় মিন্টু দাশ, মোঃ রাশেদ, মোঃ জসিম উদ্দিন, ইমরান, ওমর হাসান হিমেল, মোঃ শাহিনসহ ১০-১৫জন হামলা চালায় এবং ২টি মোবাইল ও আইডি কার্ড ছিনিয়ে নেয়। এসময় আত্মরক্ষার্থে বেলাল একটি দোকানে আশ্রয় গ্রহন করলে আজিজ নগর পুলিশ ফাঁড়ির আইসি মোহাম্মদ আলী এসে বেলালকে ও তার একটি মোবাইল উদ্ধার করে।

NewsDetails_03

হামলার শিকার সাংবাদিক বেলাল আহম্মদ পাহাড়বার্তা’কে জানান, ভিজিএফ এর চাউল কম দিচ্ছে এমন অভিযোগ পাওয়ার পর কয়েকজন সাংবাদিক ঘটনাস্থলে যাই। পরে ছবি ও ভিডিও তুললে চেয়ারম্যান এর ক্যাডাররা আমাকে মারধর করতে ও মোবাইল কেড়ে নিতে।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকা অন্য সাংবাদিক এস.কে খগেশ প্রতি চন্দ্র খোকন বলেন, ১০-১৫ জন হামলাকারীরা বেলালের উপর হামলা করে, এ সময় তাঁকে উদ্ধারের চেষ্টা করি। তাঁর ব্যবহৃত দুইটি মোবাইল ও তাঁর পত্রিকার আইডি কার্ড ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

দশ কেজি প্রদানের নিয়ম থাকলে চাউল কম প্রদানের চিত্র। ছবি-পাহাড়বার্তা

এই বিষয়ে আজিজ নগর পুলিশ ফাঁড়ির আইসি মোহাম্মদ আলী বলেন, ঘটনার পর আমি ঘটনাস্থল গিয়ে চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিনের লোকদের কাছ থেকে সাংবাদিকের একটি মোবাইল উদ্ধার করেছি, অন্য মোবাইলটিও উদ্ধারের চেষ্টা করছি।

উল্ল্যেখ্য, লামা উপজেলার আজিজ নগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে এর আগেও সাংবাদিকদের হুমকি প্রদান ও স্থানীয়দের ভূমি জবর-দখল, পাহাড় কাটা ও বনের গাছ কেটে অবৈধ ইটভাটা পরিচালনার অভিযোগ রয়েছে।

এই বিষয়ে আজিজ নগর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন পাহাড়বার্তা’কে বলেন, আমার ইউনিয়নে চাউল কম দেওয়ার কোন ঘটনা এবং সাংবাদিককে মারধর ও মোবাইল ছিনতাইয়ের কোন ঘটনা ঘটেনি।

আরও পড়ুন