বান্দরবানে বৌদ্ধ ধর্মালম্বীরা উদযাপন করছে আষাঢ়ী পূর্নিমা

নানা আয়োজনে বৌদ্ধধর্মালম্বীরা উদযাপন করছে শুভ আষাঢ়ী পূর্ণিমা। আষাঢ়ী পূর্ণিমা বৌদ্ধধর্মালম্বীদের একটি তাৎপর্যপূর্ণ দিন। এই তিথিতেই গৌতম বুদ্ধ মাতৃগর্ভে ধারণ, গৃহত্যাগ ও বুদ্ধত্ব লাভের পর প্রথম তাঁর পঞ্চবর্গিয় শিষ্যকে ধর্মচক্র দেশনা দেন এবং সংযম পালনের ব্রত হতে এই আষাঢ়ী পূর্ণিমা হতে আশ্বীনি পূর্ণিমা তিথি পর্যন্ত তিনমাস বর্ষাবাস শুরু করেছিলেন।

এই পুর্ণিমা উপলক্ষে আজ ১২ জুলাই (মঙ্গলবার) সকালে বৌদ্ধ ধর্মালম্বীরা বান্দরবানের রাজবিহার, উজানীপাড়া রাজগুরু মহা বৌদ্ধ বিহার, কেন্দ্রীয় সার্বজনীন বৌদ্ধ বিহার, কালাঘাটা আম্রকানন গৌতম বৌদ্ধ বিহার, বালাঘাটা বৌদ্ধ বিহারসহ প্রতিটি বৌদ্ধ বিহারে বিহারে সকাল থেকে চলছে পঞ্চশীল গ্রহণ, অষ্টশীল গ্রহন, সমবেত প্রার্থনা, চীবরদান, গুরু ভক্তি, ছোয়াইং প্রদান (ভান্তেদের খাবার দান) মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জলনসহ নানা অনুষ্ঠান। বিকালে বুদ্ধ মুর্তি স্মান, ধর্মদেশনা, হাজার প্রদীপ প্রজ্জলন ও দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় প্রার্থনার মধ্যদিয়ে শেষ হবে আষাঢ়ী পুর্ণিমার আয়োজন।

এসময় বিহারে ধর্মীয় দেশনা প্রদান করেন, উজানীপাড়া রাজগুরু মহা বৌদ্ধ বিহারের বিহারাধ্যক্ষ ড. সুবন্নলংকারা মহাথের।

বিহারে উপস্থিত হয়ে সমবেত প্রার্থনা, পঞ্চশীল ও অষ্টশীল গ্রহন করেন বোমাং রাজার উ উচপ্রু, রাজপুত্র চহ্লাপ্রু জিমি সহ বিহারের দায়ক-দায়িকা ও উপাসক-উপাসিকারা।

আষাঢ়ী পুর্ণিমা উপলক্ষে তিনমাস বর্ষাবাস (বিহারে অবস্থান) পালন করবে বৌদ্ধ ধর্মালম্বীরা। এসময় সংযম পালনের মধ্য দিয়ে ন্যায়, সৎ পথে চলা, বুদ্ধের জীবনানুসারন ও পরোপকারে আষাঢ়ী পূর্ণিমা হতে আশ্বীনি পূর্ণিমা পর্যন্ত তিনমাস বর্ষাবাস পালন করবে প্রতিটি বৌদ্ধ ধর্মালম্বী নারী-পুরুষেরা।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।