বান্দরবানে ব্রীজ নির্মাণে ধীরগতি : ভোগান্তিতে এলাকাবাসী

বান্দরবানের রেইচা-গোয়ালিয়াখোলা এলাকায় সাঙ্গু নদীর উপর গার্ডার ব্রিজ
বান্দরবানের রেইচা-গোয়ালিয়াখোলা এলাকায় সাঙ্গু নদীর উপর গার্ডার ব্রিজ নির্মাণের কাজ চলছে ধীরগতিতে, ব্রিজটি নির্মাণে কয়েক দফা মেয়াদ বাড়ানো হলে ও নানান অজুহাতে ব্রিজ নির্মাণে নেই তেমন কোন অগ্রগতি, আর এতে ভোগান্তীতে রয়েছে এলাকাবাসী।
সূত্রে জানা গেছে, বান্দরবান সদরের রেইচা-গোয়ালিয়াখোলা এলাকায় সাঙ্গু নদীর উপর স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্ততরের বাস্তবায়নে চলছে গার্ডার ব্রীজটির নির্মাণ কাজ। সাধারণ জনগণের দাবির মুখে রেইচা-গোয়ালিয়াখোলা ও চট্টগ্রামের চন্দনাইশ ইউনিয়নের মধ্যে যোগাযোগ স্থাপন করার লক্ষে ২০১৬ সালের ১২ই মে ব্রিজটির ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করেন পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি।
আরো জানা গেছে, এই ব্রীজ নির্মাণ হলে সাঙ্গু নদীর দুপাড়ের প্রায় ৩হাজার পরিবারের যোগাযোগ ব্যবস্থার ব্যাপক উন্নয়নসহ কৃষি পণ্য আমদানি-রপ্তানি এবং বর্ষা মৌসুমে যাতায়াত সহজতর হবে বলে আশা স্থানীয়দের। কার্যাদেশ অনুযায়ী দেড় বছরের মধ্যেই ব্রিজ নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও নির্ধারিত সময় পার হওয়ার পরও কয়েক দফা মেয়াদ বাড়ানো হলে ও ব্রিজের অর্ধেক কাজও শেষ করতে পারেনি ঠিকাদার,আর এতে চরম ভোগান্তীতে রয়েছে সাংগু নদীর দুপাড়ের বাসিন্দারা।
স্থানীয় বাসিন্দা মো:নাছির উদ্দিন বলেন,এই ব্রীজ নির্মাণ হলে আমাদের অনেক কষ্ট কমে যাবে। এখন নৌকা করে এপার ওপার পার হতে হয়। বর্ষাকাল আসলে নৌকা চলে না,আমাদের ভোগান্তীর শেষ থাকে না।
সাঙ্গু নদীর উপর ২শ’ ২০মিটার পিসি গার্ডার ব্রিজের কার্যাদেশ পায় শেখ হেমায়ত আলী এন্ড ইউ টি মং (জেভি) প্রতিষ্ঠান। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের অর্থায়নে বাস্তবায়নাধীন গার্ডার ব্রিজটির বরাদ্ধ ধরা হয়েছিল ১২ কোটি ৬১ লাখ ৫৮ হাজার টাকা। অথচ সাড়ে তিন বছর পার হয়ে গেলেও ঠিকাদারের উদাসীনতায় ব্রিজের অর্ধেক কাজ শেষ না হলে ও ঠিকাদারী প্রতিষ্টানের দাবি আগামী বছরের মধ্যে এই ব্রীজের নির্মাণ কাজ শেষ হতে পারে।
নদীর ঘাট মাঝি মো: লোকমান হাকিম বলেন,এই ব্রীজ না হওয়ায় আমরা প্রচুর কষ্ট পাচ্ছি । হবে হবে বলে প্রায় তিন চার বছর শেষ হল ,কখন কাজ শেষ হয় জানি না।
শেখ হেমায়ত আলী এন্ড ইউ টি মং কনস্ট্রাশন এর সাইট ইঞ্জিনিয়ার আরমান হোসেন বলেন,আমাদের ব্রীজের প্রায় ৬৫% কাজ শেষ হয়েছে, আগামী ২০ সালের শেষ দিকে এই ব্রীজের কাজ শেষ করা যেতে পারে।
ব্রীজের কাজে ধীরগতি ও ঠিকাদারী প্রতিষ্টানের অদক্ষতায় সম্প্রতি এলাকাবাসীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে ব্রীজের কাজ পরিদর্শন করেন পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি। এসময় মন্ত্রী দ্রুত নির্মাণ কাজ শেষ করে এলাকাবাসীর দু:খ লাঘবের জন্য স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন।
স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর বান্দরবানের নির্বাহী প্রকৌশলী মো:আবু তালেব বলেন,ব্রীজের কাজ চলমান রয়েছে এবং শীঘ্রই সম্পূর্ণ কাজ শেষ করে এই ব্রীজ জনসাধারণের চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করা হবে।
স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি কালক্ষেপন না করে দ্রুত এই ব্রিজ নির্মাণ কাজ শেষ করা হোক আর এই ব্রীজ নির্মাণ হলে হলে দু’পারের যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতিসহ এলাকার আমূল পরিবর্তণ ঘটবে,কমবে কয়েকটি গ্রামের দূরত্ব আর ব্রিজ কেন্দ্রিক বাড়বে ব্যবসা বাণিজ্য উন্নয়ন হবে যোগাযোগ ব্যবস্থার।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।