বান্দরবানে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ১৫টি দোকান ও বসতঘর পুড়ে ছাই

বান্দরবানের জামছড়ির বাঘমারা বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ১৩ টি দোকান ও ২ টি বসত ঘর পুড়ে গেছে ।

মঙ্গলবার (৮ ফেব্রুয়ারি) রাত পৌনে তিন টায় সদর উপজেলার ৬নং জামছড়ি ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের বাঘমারা বাজার এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানিয়েছেন রোয়াংছড়ি উপজেলার ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা মিজানুর রহমান।

তিনি আরো জানান, বাঘমারা বাজারের পঞান্ন দে এর চায়ের দোকানের চুলা থেকে আগুনের ঘটনাটি ঘটেছে। মুহূর্তে আগুন চারপাশে ছড়িয়ে গেলে আরো ১৩ টি দোকান ও ২ টি বসত ঘর পুড়ে যায় । ক্ষয়ক্ষতির বিষয়টি তদন্তের পড়ে বলা যাবে।
স্থানীয় বাসিন্দা পপি মারমা জানান, রাত তিনটার দিকে মানুষের চিৎকার আর কান্নকাটির আওয়াজ শুনতে পাই । পরে ঘর থেকে বাহিরে এসে দেখি বাজারে আগুন।

বাঘমারা বাজারে নাইট গার্ড সুমন দে ও রুপন দাশ বলেন, রাতে আগুন দেখেই আগুন আগুন বলে চিৎকার দিতে থাকি। পরে এলাকাবাসী ছুটে এসে আগুন নেভানোর চেষ্টা করে । ততক্ষণে আগুনে অনেকগুলো দোকান পুড়ে যায় ।
আগুনে দোকান পুড়ে যাওয়া লিপি তঞ্চঙ্গ্যা ও কাঞ্চয় তঞ্চঙ্গ্যা জানান, এখানে দোকান করি । ফ্রিজ, কাগজপত্র সহ আগুনে দোকানের সব কিছু পুড়ে গেছে। সব শেষ।

বাঘমারা বাজার সভাপতি স্বপন চক্রবর্তী জানান, আগুনে অনেক দোকান ও ২টি বসত ঘর পুড়ে গেছে। যার ক্ষয়ক্ষতি পরিমান আনুমানিক দেড় কোটি টাকার মত হবে।

ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, এলাকাবাসীর পাশাপাশি আগুন নেভাতো ছুটে আসে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট । ঘণ্টব্যাপী চেষ্টা করে আগুন নেভাতে সক্ষম হন দমকল বাহিনীর সদস্যরা । আগুনে মুদিা দোকান, চায়ের দোকান, মোটর পার্সেলের দোকান, চালের আড়তও পুড়ে গেছে।

বান্দরবান ও রোয়াংছড়ি ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশন কর্মকর্তা মো. ইসমাইল হোসেন ও মিজানুর রহমান বলেন, রাত গভীরে ঘটনাটি খবর শুনলে আমরা ছুটে যায়। এতে রাত গভীরে সড়ক ছিলো ভীষণ কুয়াশা ভরা। ঘটনাস্থলে গিয়ে দুইদল আগুনে নিভাতে সক্ষম হয়। ঘটনাস্থলে অগ্নিকান্ডে ১৫ টি দোকান পুড়ে যায়।

৬নং জামছড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ক্যসিংশৈ মারমা বলেন, ঘটনাটি রাতে ঘটেছে। ক্ষতিগ্রস্থদের ইউনিয়ন পরিষদ থেকে সাহায্য দেওয়ার বিষয়টি আমরা দেখছি।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।