বান্দরবানে যাদের পাশে কেউ নেই, তাদের জন্য ওরা !

গরীব মানুষ কর্মহীন,ফলে তাদের আয়ের উৎস বন্ধ হয়ে যাবার কারনে প্রশাসন তাদের জন্য চাল, ডাল, তেলসহ বিভিন্ন পণ্য সরবরাহ করলেও রাস্তার ধারে হাত পাতা, ছিন্নমূল, মানসিক ভারসাম্যহীন মানুষগুলোর কথা যেন কেউ ভাবেনা! শহরের হোটেলগুলো বা পাড়ার দোকানগুলোর মালিকদের দেয়া খাবারে যাদের খুদা নিবারন হতো, নিরব লক ডাউনের কারনে তাদের খুদা নিবারনের পথ রুদ্ধ। আর এই মানুষগুলোর কথা ভেবে এগিয়ে এসেছে বান্দরবান শহরের কিছু তরুণ। যারা নিজেরাই তাদের জন্য খাদ্য পৌছে দিচ্ছে, আবার তাদের সন্ধান দিতে মাইকিং করছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, করোনা ভাইরাস সংক্রামন থেকে বাঁচতে সবাই যখন নিজ নিজ ঘরে অবস্থান করে নিজেদের নিয়ে ব্যস্ত ঠিক সেই মুহুর্তে গত শনিবার (২৮মার্চ) থেকে বান্দরবানের তরুণ সংগঠক শিমুল দাশ, মুবিনুল ইসলাম জিকু, জিয়া উদ্দীন বাবুল, কাজী আলামিনরা নিয়েছে ব্যতিক্রম উদ্যোগ।

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসের কারণে স্তব্ধ বাংলাদেশ, চলছে অঘোষিত লকডাউন আয়-রোজগার না থাকায় চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে সাধারণ মানুষ, এরই মাঝে মানসিক ভারসাম্যহীন দের খুঁজে খুঁজে খাবার বিতরণ করলেন তারা। মানসিক ভারসাম্যহীনরা হাতে খাবার পাওয়ার পর অনেকটা আনন্দিত হতে দেখা যায় তাদের।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জিকু ও শিমুল জানান, লোক দেখানো নয়, অন্যকে উৎসাহিত করার জন্য আমার এই উদ্যোগ, আমরা প্রায় সময় দেখি বিভিন্ন খাবার হোটেল, দোকানপাট খোলা থাকা অবস্থায় মানসিক ভারসাম্যহীন দের খাবার দেয় , কিন্তু গত কয়েকদিন যাবত খাবার হোটেল, দোকানপাট বন্ধ থাকায় খাবার বঞ্চিত হয়। তাই আমার সামর্থ্য অনুযায়ী খাবার নিয়ে তাদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছি। সকলের প্রতি আমার বিনীত আহ্বান সামর্থ্য অনুযায়ী একে অন্যের পাশে এসে দাঁড়ায়।

এই সময় তরুণ সংগঠকরা বলেন, যতদিন দেশ থেকে করোনা দূর না হচ্ছে, আমরা প্রতিদিন চেষ্টা করবো মানসিক ভারসাম্যহীনদের মাঝে আমাদের সামর্থ্য অনুযায়ী খাবার তুলে দিতে। জেলা শহরের পাশাপাশি উপজেলায় যারা মানসিক ভারসাম্যহীন ব্যাক্তি আছে তাদের খাবার পৌছে দিতে স্ব স্ব এলাকার তরুণরা এগিয়ে আসুক।

এই ব্যাপারে বান্দরবান জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি রাজেস দাশ বলেন,”তারা কি মরে যাবে! হোটেল বন্ধ, ড্রেইন বা ডাষ্টবিন কিংবা নর্দমায় পরিত্যাক্ত খাবারও এখন তাদের কপালে জোটেনা। নিরাপদ দুরত্ব বজায় রেখে নিজেদের নিরাপদ রেখে,মাস্ক পরিধান করে। বেশি নয় দু’জন দু’জন করে পরিমাণ মতো করে। মানসিক ভারসাম্যহীন অভুক্ত মানুষগুলোর নিকট খাবার পৌঁছে দেওয়ার কাজ করতে হবে।

⬛ বান্দরবান পৌর এলাকার ভারসাম্যহীন (পাগল) দের সন্ধান ও অর্থ সহায়তার জন্য যোগাযোগ করুন। যোগাযোগ: 01823836590, 01820433900, 01815116653।

তরুণদের মতে, প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের তাদের প্রতি নজর রাখা প্রয়োজন, কারন তাদের ক্ষুধা লাগলে কাউকে বলে না। সেই দিক থেকে তারা অনেক অবহেলিত। তাই তাদের প্রতি সমাজের সকলের সু-নজর রাখা উচিত। তথ্যসূত্র- রিজভী রাহাত।

⬛ ⬛ আপনি জানেন, আপনার পাশের ভারসাম্যহীন মানুষগুলোর সাথে একই সংকটে আছে প্রানী জগৎ। তাই আপনার বাসার পাশে থাকা কুকুর, বিড়াল ও পাখিদের জন্য কিছু খাদ্য, পানিসহ বাসার পাশেই রাখুন। বেঁচে যাবে আমাদের প্রাণী জগৎ, কারন তারা আপনার মতো সৃষ্টিকর্তা প্রেরিত এই পৃথিবীর বাসিন্দা।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।