বান্দরবানে লুম্বিনী গার্মেন্টসের ২ পাহাড়ী তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ

বান্দরবান জেলা সদরে এবার দুই পাহাড়ী গার্মেন্টস কর্মীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। আজ বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) উক্ত ঘটনার ধর্ষণের শিকার হওয়া নারীরা বান্দরবান সদর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযুক্তরা হলেন, উবাচিং মারমা, সে যৌথ খামার এলাকার সার্চথুই মারমার সন্তান। অন্যজন হলেন, সুজন বড়ুয়া সে মাহিন্দ্র চালক। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত পুলিশ তাদের গ্রেফতার করতে পারেনি।

বান্দরবান সদর থানায় দায়ের করা অভিযোগ ও পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, গত বুধবার (১৮ মার্চ) রাত ৯টায় দুই বান্ধবী (তংচঙ্গ্যা সম্প্রদায়ের তরুণী) মেঘলাস্থ লুম্বিনী গার্মেন্টস হতে কাজ শেষে বাড়ি ফেরার জন্য গাড়ির জন্য অপেক্ষা করছিল। এসময় পূর্ব পরিচিত উবাচিং মারমা এবং সুজন বড়ুয়া যাত্রীসহ ঐ স্থানে গাড়ি নিয়ে আসলে গাড়ীতে উঠে। এসময় অন্য যাত্রীরা গন্তব্যে নেমে গেলেও তাদের গন্তব্য দূরে হওয়ায় গাড়িতে তারা অবস্থান করে।

আরো জানা যায়,তাদের গন্তব্যে নামিয়ে না দিয়ে গাড়িটি দ্রুতবেগে বান্দরবান সদর থানাধীন ৯নং ওয়ার্ডের সিনিয়র পাড়ার নির্জন জঙ্গলের পাশে নিয়ে যায়। পরে সুজন বড়ুয়া মুখ চেপে ধরে জোরপূর্বক জঙ্গলে নিয়ে একজনকে ধর্ষণ করে এবং উবাচিং মারমা গাড়িতেই অপরজনকে ধর্ষণ করে। এ সময় তাদের চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে দুজনই পালিয়ে যান।

বান্দরবান সদর হাসপাতালে আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা প্রত্যুষ পল ত্রিপুরা জানিয়েছেন, ঘটনার শিকার দুই তরুণীর ডাক্তারি পরীক্ষা করা হয়েছে।

বান্দরবান সদর থানা কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) আব্দুল জলিল বলেন, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং তাদেরকে আইনের আওতায় আনার সব ধরনের চেষ্টা অব্যাহত রেখেছি আমরা।

আরও পড়ুন
Loading...