বান্দরবানে শিক্ষক খুনের অপরাধে প্রথমবারের মতো ১ জনের মৃত্যুদণ্ড

NewsDetails_01

বান্দরবানে এক বিদ্যালয়ের শিক্ষককে গুলি করে খুনের অপরাধে প্রথমবারের মত একজনকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছে আদালত। আজ ৪ আগস্ট (বৃহস্পতিবার) বিকেলে বান্দরবান জেলা অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালত এর বিচারক মো:আবু হানিফ এই আদেশ প্রদান করে।

মামলার বিবরণীতে জানা যায়, জেলার রুমার পাইন্দু ইউনিয়নের বাসিন্দা ক্যঅং প্রু মারমা এর পুত্র মংরে অং মারমা বাদী হয়ে তার ছোট ভাই (শিক্ষক) নুশৈ মার্মাকে গুলি করে হত্যার অভিযোগে ৪ জনকে আসামী করে ২০১৭ সালের ২৭ জুলাই রুমা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

সুরতহাল ও ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পর্যালোচনা পূর্বক এবং সাক্ষীদের জবানবন্দী ও ধৃত তিনজন আসামী যথাক্রমে মংসাইহ্লা মারমা, হ্লাসিংমং মার্মা ও ক্যংঅংপ্রু মার্মার প্রদত্ত দোষ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী (প্রকৃত পক্ষে আসামী হ্লাসিংমং মারমা দোষ স্বীকার করেন) পর্যালোচনা করে শুধুমাত্র আসামী হ্লাসিংমং মারমার বিরুদ্ধে ভিকটিম নুশৈমং মার্মাকে গুলি ও মারধর করে খুন করার অপরাধে উক্ত আসামীর বিরুদ্ধে বিচার প্রার্থনায় প্যানেল কোট ১৮৬০ এর ৩০২ ধারার অধীনে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।
পরে আসামী মংসাইহ্লা মারমা অন্য ঘটনায় নিহত হওয়ায় এবং আসামী মংবাসিং মারমা ও ক্যঅংপ্রু মারমা ঘটনায় সংশ্লিষ্টতা নেই মর্মে উল্লেখ করে তাদেরকে মামলা থেকে অব্যাহতির প্রার্থনা করেন।

NewsDetails_03

এদিকে দীর্ঘ সময় যাচাই বাচাই আর স্বাক্ষীদের স্বাক্ষ্য প্রমানের ভিত্তিতে আদালত হ্লাসিংমং মারমাকে মৃত্যুদণ্ড এবং ১ লক্ষ টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে ৩বছর সশ্রম কারাদন্ড প্রদানের আদেশ প্রদান করে।

বান্দরবান জেলা ও দায়রা জজ আদালতের প্রশাসনিক কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মো.কামরুল হাসান জানান, এক শিক্ষককে খুনের ঘটনার দায়ে পাইন্দু ইউনিয়নের বাসিন্দা হ্লাসিংমং মারমাকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ প্রদান করেছে আদালত।

তিনি আরো জানান, আসামীকে মৃত্যুদণ্ড এবং এক লক্ষ টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে ৩বছর সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়। বান্দরবান আদালতে খুনের অপরাধে সাজা হিসেবে প্রথম বারেরমত মৃত্যুদণ্ডের আদেশ এটি।

আরও পড়ুন