বান্দরবানে সবচেয়ে উঁচু বুদ্ধমূর্তির অভিষেক

বান্দরবানের লামা উপজেলায় জেলার সবচেয়ে উঁচু ৩৫ ফুট উচ্চতা সম্পন্ন জীনামেজু রাজামুনি বুদ্ধমূর্তির অভিষেক ও উৎসর্গ করা হয়েছে।

এ উপলক্ষে শুক্রবার সকালে শোভাযাত্রা, ভিক্ষুসংঘের পিন্ডদান, ধর্মীয় ও জাতীয় পতাকা উত্তোলন, ভিক্ষুসংঘ কর্তৃক বুদ্ধমুর্তির অভিষেক ও উৎসর্গ এবং ধর্মীয় সভার আয়োজন করা হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা, জেলা প্রশাসক মোঃ দাউদুল ইসলাম, পুলিশ সুপার জেরিন আখতারসহ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দরা।

এসময় পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর বলেন, আমি বীর বাহাদুর কোন একটি জাতির মন্ত্রী নই। আমি পাহাড়ে বসবাসরত প্রতিটি মানুষের মন্ত্রী। সরকারীভাবে বরাদ্দ যাই আসুক তা সকল সম্প্রদায়ের মধ্যে সমবন্টন করে দেয়া হয়।

এদিকে জীনামেজু রাজামুনি বুদ্ধমূর্তির অভিষেক ও উৎসর্গ অনুষ্ঠানকে ঘিরে ৩দিন ব্যাপী সামাজিক ও ধর্মীয় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানের প্রথম দিন মারমা সম্প্রদায়ের ঐতিহ্যবাহি লোকনাট্য “জ্যাহ” এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করা হয়। অনুষ্ঠানের ২য় দিন সকালে শোভাযাত্রা, ভিক্ষুসংঘের পিন্ডদান, ধর্মীয় ও জাতীয় পতাকা উত্তোলন, ভিক্ষুসংঘ কর্তৃক বুদ্ধমুর্তির অভিষেক ও উৎসর্গ এবং ধর্মীয় সভার আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের আজ রবিবার শেষ দিন সকালে ভিক্ষুসংঘের পিন্ডদান এবং রাতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও ঐতিহ্যবাহী লোকনাট্য “জ্যাহ” মধ্যদিয়ে সম্পন্ন হবে।

জীনামেজু অনাথ আশ্রমের অধ্যক্ষ উ নন্দমালা থের বলেন, নব উৎসর্গকৃত বুদ্ধমুর্তিটি আশ্রম পরিচালনায় একটি অনন্য ভুমিকা রাখবে।

পরে পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর ৩০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের অর্থায়নে নির্মিত ৪ কক্ষ বিশিষ্ট অনাথ আশ্রমের ছাত্রাবাসের শুভ উদ্বোধন করা হয়।
প্রসঙ্গত,জীনামেজু রাজামুনি বুদ্ধমূর্তিটি জেলার সবচেয়ে উচ্চতা সম্পন্ন বুদ্ধমুর্তি। এটি জেলার লামা উপজেলার ইয়াংছা নামক এলাকায় জীনামেজু অনাথ আশ্রমে প্রতিষ্ঠা করা হয়।

আরও পড়ুন
Loading...