বান্দরবানে সৎ মাকে হত্যার দায়ে একজনের যাবজ্জীবন

বান্দরবানে সৎ মাকে হত্যার দায়ে আলী আহাম্মদ (৫৪) নামের এক ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত, একই সঙ্গে তাকে ১০হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

আজ সোমবার (২১ নভেম্বর) দুপুরে বান্দরবান জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো.ফজলে এলাহী ভূইয়া এ রায় ঘোষণা করেন। দন্ডপ্রাপ্ত আলী আহাম্মদ বান্দরবানের লামা উপজেলার মেরাখোলা বেগুন ঝিরি এলাকার রওশন আলীর ছেলে। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মো. ইকবাল করিম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সুত্রে জানা যায়,রওশন আলী দুটি বিয়ে করেছিলেন। পরে সম্পত্তি ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে দুই পরিবারের মধ্যে বিরোধ চলছিল। ১৯৯৮সালের ৩০জুন মাতামুহুরি নদী থেকে পানি আনতে যান রওশন আলীর স্ত্রী ফাতেমা বেগম (৪০)। পানি নিয়ে ফেরার পথে আলী আহাম্মদ ধারালো দা দিয়ে তার ঘাড়ে কোপ মারেন, এতে ঘাড় থেকে মাথা বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এসময় ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান আলী আহম্মদ। পরে স্থানীয়রা তাকে ধাওয়া করে আটক করলে সে হত্যার দায় স্বীকার করে।

পরবর্তীতে ভিকটিমের সন্তানরা ছোট হওয়ায় এবং ভিকটিমের স্বামী বৃদ্ধ ও বধির হওয়ায় ফাতেমা বেগম এর আত্মীয় (ভায়রা) মো. সিরাজ বাদী হয়ে লামা থানায় একটি মামলা দায়ের করে। মামলায় ৬জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহনের পর উভয় পক্ষের যু্িক্ততর্ক শুনানী শেষে আদালত আলী আহাম্মদকে পেনাল কোডের ৩০২ ধারায় যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও দশ হাজার টাকা জরিমানা দন্ডে দন্ডিত করে দন্ডাদেশ প্রদান করে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।