বান্দরবানে ১৮ দিন আটকে রেখে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ

বান্দরবান সদর হাসপাতালে চিকিৎসারত ধর্ষিত স্কুল ছাত্রী
বান্দরবানের লামা উপজেলার আজিজনগর ইউনিয়নে অপহরণ করে টানা ১৮দিন আটকে রেখে অষ্টম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষনের অভিযোগ পাওয়া গেছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে,গত ৮ জুলাই জেলার লামা উপজেলার আজিজনগর গার্লস স্কুলে যাবার পথে একই এলাকার সাইফুল নামের এক বখাটে এই স্কুল ছাত্রীকে কয়েকজনের সহায়তায় অপহরণ করে চট্টগ্রামে নিয়ে যায়। চট্টগ্রামের অক্সিজেন এলাকায় এক আত্মিয়ের বাসায় তাকে টানা ১৮দিন আটকে রেখে দিনের পর দিন ধর্ষন করে এই বখাটে। সাইফুল আজিজনগরের ৪নং ওয়ার্ডের তেলুনিয়াপাড়ার জমির হোসেনের পুত্র।
মেয়ের মা জোস্না আক্তার পাহাড়বার্তাকে জানান, মেয়েকে অপহরণের পর অনেক খুঁজেছি, পরে স্থানীয় নেতাদের হস্তক্ষেপে তাকে ছেড়ে দেয়,আমরা এর বিচার চায়।
আরো জানা গেছে, পরে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের হস্তক্ষেপে এই স্কুল ছাত্রীকে গত ২৫ জুলাই বিকালে উপজেলার আজিজনগরের তেলুনিয়া পাড়ায় রেখে চলে যায় সাইফুল। এসয় তার স্বজনরা তাকে অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে গত ২৬ জুলাই বান্দরবান সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। সদর হাসপাতালে তাকে শারীরিক পরীক্ষা করানো হয়।
এই ব্যাপারে ছাত্রীর পিতা নুর হোসেন পাহাড়বার্তাকে বলেন, আমার মেয়েকে টানা ১৮দিন আটকে রেখে ধর্ষন করে, আমি এই ঘটনার সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চায়।
এদিকে এই ব্যাপারে আজ শনিবার বান্দরবান জজকোটে মামলা দায়ের করবেন বলে জানান ভুক্তোভোগি পরিবার।
এই ব্যাপারে লামা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আপ্পেলা রাজু নাহা পাহাড়বার্তাকে বলেন, এই ব্যাপারে থানায় কোন অভিযোগ দায়ের করেনি, অভিযোগ দিলে যথাযথা ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।