বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের উদ্যেগে বৌদ্ধ বিহারে শ্রদ্ধাদান

পার্বত্য জেলা বান্দরবানে বৈসাবি উৎসব স্থগিত করায় জেলার বিভিন্ন বৌদ্ধ বিহারে বিহারে শ্রদ্ধাদান করা হয়েছে।

আজ শুক্রবার (১০ এপ্রিল) দুপুরে বান্দরবান সদরের খিয়ং ওয়া কিয়ং রাজ বিহারে এই শ্রদ্ধাদান করেন পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্যরা।

বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য ক্যসাপ্রু ও লক্ষীপদ দাশ বলেন, নববর্ষ উপলক্ষে জেলার ৪শত ১৮টি বৌদ্ধ বিহারে অবস্থারনত সকল বৌদ্ধ ভিক্ষুদের পার্বত্য জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে নববর্ষের শ্রদ্ধা দান হিসেবে পর্যাপ্ত পরিমানে খাদ্য সামগ্রী প্রদান করা হবে।

এসময় সদস্যরা আরো বলেন, নববর্ষ উপলক্ষে ক্ষুদ্র নৃগোষ্টি সম্প্রদায় কয়েকদিন ব্যাপী নানা উৎসবের আয়োজন করে থাকে কিন্তু এইবার করোনা মোকাবেলায় সরকারি নিষেধাজ্ঞা থাকায় আমরা জেলার সকল বৌদ্ধ বিহারের সাথে কথা বলে এবারে বৈসাবির সকল অনুষ্ঠান স্থগিত করেছি। নববর্ষ পালন স্থগিত থাকলে ও বান্দরবানের সকল লক ডাউনকৃত গ্রাম, পাড়া ও বৌদ্ধ বিহারে বিহারে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের ব্যবস্থাপনায় খাদ্য সামগ্রী প্রদান কার্যক্রম চলমান থাকবে।

এসময় শ্রদ্ধাদান প্রদান করার সময় উপস্থিত ছিলেন বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান থোয়াইচ প্রু মাস্টার, মংক্যচিং চৌধুরী, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য ক্যসাপ্রু, সদস্য লক্ষীপদ দাশ সদস্য তিং তিং ম্যা, বান্দরবান সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি পাইহ্লা অং মার্মাসহ বিভিন্ন বিহার কমিটির সদস্যরা।

পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা বলেন, জেলার ৪শত ১৮টি বৌদ্ধ বিহারে অবস্থারনত সকল বৌদ্ধ ভিক্ষুদের জন্য প্রতি বিহারে চাল ২৫ কেজি, ডাল ১ কেজি, তেল ১ লিটার, চিনি ১ কেজি, পাউডার দুধ আধা কেজি, চাপাতা ২০০গ্রাম, আলু ৫ কেজি প্রদান করা হবে।

পার্বত্য জেলা পরিষদের সুত্রে জানা যায়, সদর উপজেলায় ১০৬টি, রোয়াংছড়ি উপজেলায় ৭৯টি, থানচি উপজেলায় ৪০টি, রুমা উপজেলায় ৫২টি, আলীকদম উপজেলায় ২২টি, লামা উপজেলায় ৬৫টি এবং নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় ৫৪টি বৌদ্ধ বিহারে এই শ্রদ্ধাদান প্রদান করা হবে, আর এই শ্রদ্ধাদানের মাধ্যমে বিহারে অবস্থানরত ভিক্ষুরা কিছু সময়ের জন্য হলে ও কিছুটা উপকৃত হবে।

আরও পড়ুন
Loading...