বান্দরবান পৌর এলাকার ভোগান্তির অপর নাম কালাঘাটা সড়ক

বান্দরবান শহরের পৌর এলাকার কালাঘাটার বড়ুয়াটেকে সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থার বেহাল দশায় চরম ভোগান্তিতে পৌরবাসী। সড়ক ও ড্রেনেজ ব্যবস্থার বেহাল দশায় জলাবদ্ধতা যেন মরার উপর খাড়ার ঘা হয়ে দেখা দিয়েছে। বৃষ্টি হলেই জমে হাঁটুপানি; পানি উঠে পড়ে দোকান ও ঘরে। ফলে সাধারণ মানুষের প্রশ্ন এই ভোগান্তির শেষ কোথায়?

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বান্দরবান সদরের প্রথম শ্রেণীর পৌরসভার বড়ুয়াটেকের প্রধান সড়কটি খানাখন্দকের কারণে এখন গাড়ি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ছে। দীর্ঘদিন ধরে মেরামত বা সংস্কারের পৌর কর্তৃপক্ষের দৃশ্যমান কোনও উদ্যোগ নেই। পৌরসভাটি প্রথম শ্রেণির হলেও রাস্তাঘাটে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন পৌরবাসী।

সরজমিনে দেখা যায়, বান্দরবান পৌরসভায় বড়ুয়াটেক সড়কে মাঝখানে পুরো অংশের ইট-খোয়া উঠে খানাখন্দে কাঁদামাটিতে ভরে গেছে। এতে ঝুঁকি নিয়ে গাড়ি চলাচল করছে। এখানে প্রতিনিয়তই গর্তে ছোট-বড় গাড়ি উল্টে গিয়ে ঘটছে দুর্ঘটনার শিকার হয়ে অনেক আহত হচ্ছে। তাছাড়া পৌরসভায় বিভিন্ন এলাকার রাস্তায় সৃষ্টি হয়েছে ছোট-বড় অসংখ্য গর্ত। সামান্য বৃষ্টিতেই পানি জমে এসব সড়ক চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে।

জলে থইথই করছে বান্দরবান পৌর এলাকার কালাঘাটা সড়ক। ছবি-পাহাড়বার্তা

বান্দরবান পৌরসভার কালাঘাটার বাসিন্দা নুর আলম বলেন, গুরুত্বপূর্ণ সড়কটি দিয়ে রোয়াংছড়ি উপজেলার গাড়ি চলাচল করে। অনেক সময় গর্তে পড়ে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা উল্টে দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে যাত্রীরা।

তিনি আরো বলেন, সামান্য বৃষ্টিতেই রাস্তাায় হাঁটু পানি জমে যায়। পৌর কর্তৃপক্ষকে যত দ্রুত সম্ভব রাস্তাটি মেরামতের উদ্যোগ নেওয়া খুব জরুরি প্রয়োজন।

সড়কটি সংস্কার ও নির্মাণের প্রতিশ্রুতি পেয়েছেন নির্বাচনের আগে। জনপ্রতিনিধিদের প্রতিশ্রুতি মুখে থাকলেও ভোগান্তিতে পাশে নেই কেউ। স্থানীয় মেয়র ও কাউন্সিলর এগিয়ে আসেননি বলে অভিযোগ কালাঘাটাবাসীর।

কালাঘাটার আরেক বাসিন্দা আবু তাহের বলেন, প্রথম শ্রেণীর পৌরসভায় বাস করি, কিন্তু এই রাস্তা দেখলে মনে হয় কোন গ্রামে বসবাস করছি। তার প্রশ্ন, ‘পৌরএলাকার মানুষের যদি এমন ভোগান্তি হয়, তাহলে বান্দরবান পৌরসভার কাজটা কী?’

বান্দরবান পৌর সভার ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর অজিত কান্তি দাশ বলেন, এই বিষয়ে পার্বত্য মন্ত্রী মহোদয় এলজিইডি’র নির্বাহী কর্মকর্তাকে দায়িত্বে দিয়েছেন, বিষয়টি তারা দেখছে।

এদিকে বান্দরবান পৌরসভার বড়ুয়াটেক সড়কটি এমন খানাখন্দ, কাঁদা মাটি আর পানিতে নিমজ্জিত থাকার দুর্ভোগের চিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্থানীয়রা লাইভে প্রচার করলে জেলা জুঁড়ে সমালোচনার ঝড় উঠে।
বান্দরবান পৌরসভার মেয়র ইসলাম বেবী বলেন, বৃষ্টির পরেই কাজ শুরু হবে, বৃষ্টির জন্য কাজের বিঘœ ঘটছে। তিনি আরো বলেন, এই রাস্তাটি সংস্কারের জন্য টেন্ডার প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।