বান্দরবান সরকারী কলেজের ছাত্রীকে মারধর করলেন বখাটে !

বান্দরবান সরকারী কলেজে ইংরেজী ২য় পত্রের পরীক্ষা দিতে যাবার সময় এক ছাত্রীকে বাজারের মধ্যে প্রকাশ্যে মারধরের অভিযোগ উঠেছে বখাটে বিমল জলদাসের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত বিমল জলদাস জেলা শহরের কালাঘাটা জেলে পাড়ার কালাবাসী জলদাসের ছেলে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হামলার শিকার কলেজ ছাত্রী বলেন,আজ আমার কলেজে ইংরেজী ২য়পত্রের পরীক্ষা ছিল। তাই সকাল ৯টার সময় পরীক্ষা দেবার জন্য ঘর থেকে বের হই। কালাঘাটা ফরেষ্ট অফিসের সামনে যেতেই বিমল জলদাস কিছু না বলেই আমার চুল ধরে টেনে নিয়ে নিয়ে যায়। এরপর আমাকে এলোপাথারি চড় থাপ্পর ও মারধর করতে থাকে। এসময় আমার কলেজের ড্রেসেরও বিভিন্ন স্থানে ছিঁড়ে যায়। আমিও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় জখমপ্রাপ্ত হই। পরীক্ষা শেষ করে সদর হাসপাতালের ডাক্তারের কাছে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছি।
উক্ত ছাত্রী আরো বলে, আমি যখন বান্দরবান সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ৬ষ্ঠ শ্রেনীতে ভর্তি হই তখন বিমল জলদাসের ছোট ভাই নির্মল জলদাস আমাকে বিয়ের জন্য সব সময় বিরক্ত করতো। আমি তখন বিষয়টি গুরুত্ব দিইনি। আমি তার প্রস্তাবে সাড়া না দিলে আজ হঠাৎ করেই আমার উপর এ হামলা চালায়। শতশত লোকের সামনে আমার উপর হামলা চালিয়েছে, আমি এর উপযুক্ত বিচার চাই।
এ ব্যাপারে কলেজ ছাত্রীর মা বলেন, বিমল জলদাস আজকে নয়, প্রতিদিনই কলেজে যাবার সময় আমার মেয়েকে বিরক্ত করে। কিন্তু একই পাড়ার ছেলে হওয়ায় এতদিন চুপ ছিলাম। কিন্তু আজকের এ ঘটনার জন্য আমি প্রশাসন ও সরকারের কাছে দাবি জানাচ্ছি। আমি এর উপযুক্ত বিচার চাই। তিনি আরো বলেন, এ ব্যাপারে আমি বাদি হয়ে থানায় একটি অভিযোগও করেছি।
ছাত্রীর বাবা বলেন, বিমল আমার মেয়েকে আগেও অনেকবার পথরোধ করেছে। তবে আমরা তা সহ্য করেছি একমাত্র এলাকার ছেলে হিসেবে। কিন্তু আজকের এ ঘটনার আমি অবশ্যই সবার কাছে বিচার চাই।
বান্দরবান কালাঘাটার ব্যবসায়ী ফরিদ বলেন, ছাত্রীটি কলেজের পোশাক পড়ে কলেজে যাচ্ছিল। এমন সময় কোথা থেকে যেন বিমল এসে তার উপর হামলা চালায়এবং পরে বিভিন্ন স্থানে লাথি ও চড় থাপ্পড় মারতে থাকে। এ বিষয়ে জানার জন্য অভিযুক্ত বিমল জলদাসের মোবাইলে কল দিলে মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়।
এ ব্যাপারে বান্দরবান সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ গোলাম সরোয়ার বলেন,আমি বিষয়টি শুনেছি এবং একটি লিখিত অভিযোগও আমি পেয়েছি। তবে এখনো অভিযুক্তকে ধরতে পারিনি। তবে এ ব্যাপারে অবশ্যই উপযুক্ত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন
8 মন্তব্য
  1. Shoharta Reaz বলেছেন

    Aung May koi chili tui?

    1. Aung May বলেছেন

      ami toh akhni dekhlam

    2. ইসমত ইমা বলেছেন

      Aita kkn holo?

  2. Raju Marma বলেছেন

    উপযুক্ত শাস্তি দেওয়া হোক !

  3. Mohosin Reza বলেছেন

    প্রসাশনের নাকের ডগায় কিভাবে হল?

  4. Badsha Alamgir Hossin বলেছেন

    প্রকাশ্যে ফাসি দেওয়া দরকার

  5. S.m. Solayman বলেছেন

    Sad, very sad!!! বান্দরবানেও এই অবস্থা!!! এর উপযুক্ত শাস্তি হওয়া উচিত।

  6. Jahirul Islam বলেছেন

    অন্য কা‌হিনী না থাক‌লে প্রকা‌শ্যে এমন ঘট‌বে, কেউ কিছু বল‌বে না, তা কিভা‌বে হয়? হয়ত প্রে‌মের ম‌ধ্যে নতুনত্ব যোগ। হা হা হা। ৬ষ্ট শ্রে‌ণি হ‌তে মা‌নে ৮ বছর!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।