বাসন্তী চাকমার বক্তব্যের প্রতিবাদে রুমায় প্রতিবাদ সভা

বাসন্তী চাকমার বক্তব্যের প্রতিবাদে রুমায় প্রতিবাদ সমাবেশ
পার্বত্য জেলার সংরক্ষিত সংসদ সদস্য বাসন্তী চাকমা এমপি পার্বত্য চট্টগ্রামের রাষ্ট্র বিরোধী ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর নামে মিথ্যা বক্তব্যের প্রতিবাদে বান্দরবানের রুমায় এক প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ মঙ্গলবার বেলা ১১টায় রুমা সদর ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলার সচেতন নাগরিক সমাজ ব্যানারে এ প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন রুমা সদর ইউপি চেয়ারম্যান ও আ.লীগের সহ-সভাপতি শৈমং মারমা।
রেমাক্রীপ্রাংসা ইউপি চেয়ারম্যান জিরা বমের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ও অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বাজার পরিচালনা কমিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ খলিলুর রহমান, ঠিকাদার রতন কান্তি দাশ, হরি মন্দির পরিচালনা কমিটির অর্থ সম্পাদক বিকাশ চৌধুরী, ব্যবসায়ী ম্ক্তুার কামাল,পরিতোষ দাশ টিটু ও উপস্থাপনায় দায়িত্ব পালন করেন মোহাম্মদ হাসান মুরাদ।
প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা বলেন,পার্বত্য জেলার সংরক্ষিত আসনে মহিলা সংসদ সদস্য বাসন্তি চাকমা সংসদ অধিবেশনে রাষ্ট্রের গৌরব ও সুনাম রক্ষায় নিয়োজিত সেনাবাহিনী ও বাঙ্গালীদের বিরুদ্ধে তাঁর উগ্র চেতনাবোধ থেকে পাহাড়ি বাঙ্গালী মধ্যে উস্কানিমূলক মিথ্যা বক্তব্য দিয়ে বিভ্রান্ত করেছেন। যা মহান সংসদে সংসদ সদস্যের পদে শপথ লংঘন করেছেন এবং পার্বত্য এলাকার সম্প্রীতি বিনষ্ট হবার আশঙ্কা খেকে যায়। বাসন্তী চাকমার সংসদ সদস্যের পদ থেকে প্রত্যাহারের দাবি জানান। এসব উস্কানিমূলক বক্তব্যের জন্য তাঁকে প্রকাশে ক্ষমা চাইতে হবে বলে উল্লেখ করেন বক্তারা। এসময় স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, ব্যবসায়ী ও বিভিন্ন পাড়ার সাধারণ লোকজন এ প্রতিবাদ সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন।
প্রসঙ্গত; সম্প্রতি জাতীয় সংসদে এক অধিবেশনে বক্তব্য প্রদানকালে তিন পার্বত্য জেলার সংরক্ষিত আসনে সাংসদ বাসন্তী চাকমা তাঁর বক্তব্যে বলেছেন, ১৯৮৬ সালে ১লা মে খাগড়াছড়ি জেলার পানছড়ির একটি ঘটনার কথা উল্লেখ করেন- ঐদিন সেনাবাহিনী এবং পার্বত্য চট্টগ্রামের বাঙ্গালীরা মিলে ‘আল্লাহ আকবার’ শ্লোগান দিয়ে পানছড়ির দুই-তিন গ্রামের পাহাড়িদেরকে জবাই করেছিলো।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।