বৈসাবি’তে রাঙামাটিতে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা

বৈসাবি’তে রাঙামাটিতে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা
পাহাড়িদের বৈসাবি উৎসব উপলক্ষে রবিবার রাঙামাটিতে শুরু হয়েছে চারদিনের কর্মসূচি। সকাল ১০টায় রাঙামাটি পৌরসভা প্রাঙ্গণে বিজু, সাংগ্রাইং, বৈসুক, বিষু, বিহু, চাংক্রান-২০১৭ উদযাপন কমিটির আহবায়ক অবসরপ্রাপ্ত উপসচিব প্রকৃতি রঞ্জন চাকমার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাঙামাটির সংসদ সদস্য ঊষাতন তালুকদার,বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সাবেক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ড. মানিক লাল দেওয়ান ও এমএন লারমা মেমোরিয়েল ফাউন্ডেশনের সভাপতি বিজয় কেতন চাকমা। বেলুন উড়িয়ে অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধন করেন চাকমা সার্কেল চিফ রাজা ব্যারিস্টার দেবাশীষ রায়। উদ্বোধনীর সঙ্গে সঙ্গেই ঐতিহ্যবাহী নিজস্ব সংস্কৃতির নৃত্যসঙ্গীত পরিবেশন করেন পাহাড়ি শিল্পীরা।
উদ্বোধনী সমাবেশে বক্তারা বলেন, জুম্ম জাতির ঐতিহ্য-সংস্কৃতি রক্ষায় পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি বাস্তবায়ন ছাড়া কোনো বিকল্প নেই। এ লক্ষে পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়নের আন্দোলনকে আরও বেগবান করতে হবে। সমাবেশের পর পৌরসভা প্রাঙ্গণ হতে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করে শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে রাঙামাটি স্টেডিয়াম গিয়ে শেষ হয়। শোভাযাত্রায় শত শত পাহাড়ী নারী পুরুষ তাদের ঐতিহ্যবাহী পোষাক পরিহিত করে বিভিন্ন ব্যানার ফেষ্টুন নিয়ে এই র‌্যালীতে অংশ নেয়। রাঙামাটির বিজু সাংগ্রাই বৈসুক উদযাপন পরিষদ এই র‌্যালীর আয়োজন করে।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য ঊষাতন তালুকদার বলেন, সরকার পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়ন না করায় জুম্ম সংস্কৃতি আজ হুমকির মুখে। জুম্ম জনগণ আজও অধিকার হারা। পার্বত্য চুক্তির মৌলিক বিষয়গুলো আজও অবাস্তবায়িত।
পার্বত্য চট্টগ্রামে বসবাসরত পাহাড়ি জাতিগোষ্ঠীদের ঐতিহ্যবাহী প্রধান সামাজিক উৎসব বিজু বা বৈসাবি উদযাপিত হবে ১২, ১৩ ও ১৪ এপ্রিল।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।