বৌদ্ধ ভিক্ষুকে লাঞ্চিত করার ঘটনায় রুমায় মানববন্ধন

বৌদ্ধ ভিক্ষুকে শারিরীক আঘাত ও লাঞ্চিত করার ঘটনায় জড়িতদের আটক করে আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে আইনের আওতায় এনে শাস্তি ব্যবস্থা করতে হবে। তা না হলে আরো কঠোর নতুন কর্মসূচি গ্রহন করা হবে। বান্দরবানের রুমা উপজেলার রুমা দেব বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ উঃ চাইন্দাসরা মহাথের, পলিতং পাড়া বৌদ্ধ বিহারে অধ্যক্ষ উঃ নাইন্দাসারা ভিক্ষু ও রুমাচড় পাড়া বৌদ্ধ বিহারাধ্যক্ষ চাইন্দিয়া ওয়াইন্দা্ এতিন ভিক্ষু বিনা কারণে শারারিক আঘাত ও লাঞ্চিত করার ঘটনার প্রতিবাদে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনের সভাপতি উ নাইন্দিয়া মহাথের এ আল্টিমেটাম দিয়ে এই কর্মসূচি কথা ঘোষণা করেন।

বান্দরবানে রুমা উপজেলায় আজ বৃহস্পতিবার (৭এপ্রিল) বেলা ১১টায় রুমা বাজারে হরি মন্দির মার্কেট ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে রুমা উপজেলা মারমা বৌদ্ধ সম্প্রদায়র ব্যানারে মানববন্ধন করা হয়েছে।

এসময় বক্তব্য দেন ভিক্ষু সমিতির সভাপতি ও পাইন্দু হেডম্যান পাড়া বৌদ্ধ বিহারাধ্যক্ষ উঃ সুন্দারা্ মহাথের, পলিতং পাড়া ভান্তে, উঃ নাইন্দাসারা, মারমা ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি উথোয়াইচিং মারমা, সাবেক সভাপতি রুইবেঅং মারমা, পাইন্দু ইউপি চেয়ারম্যান উহ্লামং মারমা, নারী নেত্রী উমেসিং মারমা ও রুমা সদর ইউপি ৮নং ওয়ার্ড মেম্বার চাইশৈহ্লা মারমা প্রমুখ।

মারমা ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন(মাওএ) সাবেক সভাপতি শৈহ্লাচিং মারমা পরিচালনায় সভাপতির সমাপনী বক্তব্যে উঃ নাইন্দিয়া মহাথের বলেন বৌদ্ধ ভিক্ষুদের হামলার নায়ক ও পরিকল্পনাকারী অঞ্জন বড়ুয়াসহ ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি দিতে হবে। তা হলে কঠোর কমর্মসূচি নেয়া বলে হুশিয়ারি করেন নাইন্দিয়া মহাথের।

এর আগে বেলা ১১ টায় রুমা দেব বৌদ্ধ বিহারের প্রাঙ্গন থেকে শুরু হয়ে রুমা বাজারসহ এলাকার গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে হরি মন্দির মার্কেটের সামনে জমায়েত হয়।

প্রসঙ্গত; গত মঙ্গলবার সন্ধ্যার দিকে রুমা দেব বৌদ্ধ বিহারে ফটকের উপরে বীমে বড়ুয়া পাড়া লেখার মুছে ফেলা নিয়ে উত্তেজনা শুরু হয় বড়ুয়া পাড়াবাসীদের নিয়ে।

মঙ্গলবার রাতে উত্তেজিত অবস্থায় বাজার কমিটির সভাপতি অঞ্জন বড়ুয়া এর নেতৃত্বে বড়ুয়া পাড়ার বাসিন্দা খোকনের ছেল হৃদয় বড়ুয়া ও রাখাল বড়ুয়ার ছেলে বিপ্লব বড়ুয়া আরমানসহ প্রায় ৩০ জনের বেশি দেব বিহারে ১ম বার হামলা চালায়। তবে সেখানে দায়িত্বরত পুলিশের বাধার মুখে হামলা চালাতে পারেনি। ওই সময় প্রথম বিহারের দরজায় পায়ের লাথি মেরে হামলা চালিয়েছে বলে প্রত্যক্ষ দর্শী বিহারের শিক্ষার্থীরা জানিয়েছেন।

দ্বিতীয় দফায় বুধবার দিনে দুপুরে পরিকল্পিত্ ভাবে বিহারে দিকে নারী-পুরষ ৪৫ জনের বেশি বড়ুয়া সম্প্রদায়ের লোকজন বিহারে গিয়ে বৌদ্ধ ভিক্ষুদের উপর হামলা চালায়। এতে ওই তিন ভিক্ষু আহত হয়। তারমধ্যে হামলা সময়ে পালিয়ে বড় আঘাত থেকে বেচেঁ যায় রুমা চড় পাড়া বৌদ্ধ বিহারাধ্যক্ষ উ নাইন্দা ওয়েন্ডা ভিক্ষু।

তবে দেব বৌদ্ধ বিহারে হামলাকারীদের আঘাতে মারাত্মক আহত হয়েছেন উঃ চাইন্দাসারা মহাথের। বর্তমানে বান্দরবান সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

এদিকে রুমা দেব বৌদ্ধ বিহার পরিচালনা কমিটি একাংশের সম্পাদক অঞ্জন বড়ুয়া প্রথমবার হামলার কথা অস্বীকার করে বলেন বুধবার দুপুরে উত্তেজিত যুবকদের বিহার থেকে নামিয়ে নিতে তিনি বিহারে গিয়েছিলেন। বৌদ্ধ বিহারে ভিক্ষুকে হামলার কথা সত্য নয় বলে দাবি করেন অঞ্জন।

রুমা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকতর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন বলেন, বৌদ্ধ ভিক্ষুকে হামলা নিয়ে লিখিত কোনো অভিযোগ এখনো পাননি। লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।