বৌদ্ধ ভিক্ষুদের মাধ্যমে ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত নিরসনের আহবান জানালেন এড. আশুতোষ চাকমা

খাগড়াছড়ির দীঘিনালা উত্তর বানছড়া সিদ্ধানন্দ বৌদ্ধ বিহারে ৪৬ তম দানোত্তম কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠানে অতিথিরা
বৌদ্ধ ভিক্ষুদের মাধ্যমে চলমান ভ্রাত্তৃঘাতি সংঘাত নিরসনের আহবান জানিয়েছেন খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদের সদস্য এড. আশুতোষ চাকমা। আজ শনিবার খাগড়াছড়ির দীঘিনালা উত্তর বানছড়া সিদ্ধানন্দ বৌদ্ধ বিহারে ৪৬ তম দানোত্তম কঠিন চীবর দানানুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই আহ্বান জানান।
সভায় সভাপতিত্ব করেন কবাখালী মৈত্রী বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ বিশুদ্ধানন্দ মহাথের। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন -দীঘিনালা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সুসময় চাকমা, খাগড়াছড়ি জেলা কৃষক শ্রমিক লীগের সভাপতি সুরেশ তালুকদার, ৪ং দীঘিনালা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান প্রজ্ঞান জ্যোতি চাকমা, প্রাক্তন চেয়ারম্যান চন্দ্ররঞ্জন চাকমা, বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত মেম্বার, কার্বারি ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। সভায় প্রধান অতিথি এড.আশুতোষ চাকমা আরো বলেন, এখন পার্বত্য চট্টগ্রামের পরিস্থিতি খুবই নাজুক। ভাইয়ে ভাইয়ে মারামারি হানাহানি চলছে। সকলের পক্ষে এসব বিষয়ে আলোচনা করা সম্ভব নয়,একমাত্র ভান্তেদের সম্ভব। পাশাপাশি এই সংকটময় অবস্থায় টিকে থাকার জন্য বর্তমান যুবসমাজকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত হওয়া উচিত।
নিজের ব্যক্তি জীবনের উদাহারণ দিয়ে তিনি বলেন ,আমরা ১৫২ জন মিলে একসাথে আইনে স্নাতকোত্তর দিগ্রী অর্জন করি। আমাদের অনেকে উচ্চতর কর্মজীবনে রত আছেন। একমাত্র তিনি সামান্যতম ওকালতি করছেন। যদি তিনি সুশিক্ষা অর্জন করতেন তাহলে আরো অধিকতর ভালো অবস্থানে যেতে পারতেন।
তিনি আরো উল্লেখ করেন বর্তমান সরকার পার্বত্য শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন করেছেন। পার্বত্য চট্টগ্রামে অনেক উন্নয়ন হয়েছে। এই ধারা অব্যাহত রাখার জন্য তিনি নৌকায় বাবু কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরাকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানান।
অনুষ্ঠানে স্বাগতিক বক্তব্য রাখেন, বিহার পরিচালনা কমিটির সভাপতি রবিসিন্দু চাকমা। মংগলাচরণ পাঠ করেন অমরকীর্তি ভিক্ষু। সভাপতি অনুষ্ঠানে সবাইকে ধন্যবাদ জানান। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন,উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সুসময় চাকমা, ইউপি চেয়ারম্যান প্রজ্ঞান জ্যোতি চাকমা প্রমুখ।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।