ভিন্ন ভাষায় পোস্টার তৈরী করে বান্দরবানে নির্বাচনী প্রচার

বান্দরবান পার্বত্য জেলায় বাঙালীর পাশাপাশি ১১টি আদিবাসী সম্প্রদায়ের বসবাস। আর বাংলা ভাষার পাশাপাশি ১১ সম্প্রদায়ের ১১টি ভাষা রয়েছে। উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মানুষ নির্বাচনে অংশ গ্রহন করলেও তারা নির্বাচনে প্রচারের জন্য স্ব স্ব ভাষায় পোষ্টার প্রকাশ করে ভোটের মাঠে ভোটারদের নজর কারার চেষ্টা করছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বান্দরবানের থানচি উপজেলার ৪টি ইউনিয়নে আগামী ২৬ ডিসেম্বর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনের ১নং রেমাক্রী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মুইশৈথুই মারমা বাংলা, ম্রো ও মারমা ভাষায় পোষ্টার তৈরী করছেন। তার মতো অনেক প্রার্থী তৈরী করছে ভিন্ন ভাষার নির্বাচনী পোস্টার।

থানচি উপজেলায় আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মুইশৈথুই মারমা বলেন, তিন ভাষায় পোস্টার করা কারন হলো, পার্বত্য জেলা গুলোতে ক্ষুদ্র জাতিগোষ্ঠীর বয়স্ক লোকজন যেন নিজ নিজ ভাষায় বুঝতে পারে, তাই ভিন্ন ভিন্ন ভাষায় পোস্টার করা হয়েছে।

আরো জানা গেছে, বান্দরবানসহ অপর দুই পার্বত্য জেলায় ভিন্ন ভাষায় পোস্টার তৈরীর রীতি নতুন নয়, এর আগে জাতীয় সংসদ নির্বাচন, উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ও পৌর নির্বাচনের প্রার্থীরা বিভিন্ন ভাষায় নির্বাচনী পোস্টার ও লিফলেট তৈরী করে নির্বাচনী প্রচার চালান।

এই বিষয়ে থানচি উপজেলার নির্বাচন কর্মকর্তা তরুন কুমার চাকমা বলেন, পাহাড়ে বিভিন্ন জাতি গোষ্ঠির বসবাস, তাই নির্বাচনের বিষয় বুঝার জন্য প্রার্থীরা বিভিন্ন ভাষায় পোস্টার তৈরী করেন, অন্য ভাষায় পোষ্টার তৈরী করতে নির্বাচনী আইনে কোন বাধা নেই।

প্রসঙ্গত, বান্দরবানে থানচি’র ৪ ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান,সংরক্ষিত সদস্যা ও সাধারন সদস্য প্রার্থীদের কোন অভিযোগ ছাড়া বৈধ করে নির্বাচন কমিশনে নিয়োগ প্রাপ্ত কর্মকর্তা তিন রিটার্নিং অফিসার ১৩ জন চেয়ারম্যান, ৩৩ জন সংরক্ষিত মহিলা আসনের প্রার্থী ও ১১৬ জন সাধারন আসনের প্রার্থীদের বৈধ ঘোষনা করেছে, এরমধ্যে ২ ইউপিতে একক প্রার্থী হিসেবে ৩ জন ইউপি সদস্য বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।