ভুল চিকিৎসায় নাইক্ষ্যংছড়ির ত্রিপুরা পল্লীর শিশুর মৃত্যু

ভুল চিকিৎসায় বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার দৌছড়ি ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড বাইশাখং ত্রিপুরা পাড়া এলাকার বতিরাম ত্রিপুরার ৪ বছর বয়সী চন্দ্রমনি ত্রিপুরার মৃত্যু হয়েছে।

আজ বুধবার (২ অক্টোবর) বেলা ১১ টায় রামু উপজেলার গর্জনিয়া বাজারের সেবা ডায়গষ্টিক সেন্টারে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর পরই হাসপাতালটি তালাবদ্ধ করে অভিযুক্ত ডাক্তারসহ ও কর্মকর্তা কর্মচারী সবাই পালিয়ে গেছেন।

শিশুটির পিতা ভুল চিকিৎসায় তার শিশু মারা গেছেন, এমন অভিযোগ করার পর গর্জনিয়া পুলিশের উপ-পরিদর্শক দেব্রত রায়ের নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ ওই ডায়গনষ্টিক সেন্টারটি ঘিরে রেখেছে।

জানা যায়,নিহতের বাবা তার শিশু সন্তানকে নিয়ে সামান্য জ্বর নিয়ে বাজারের মাছ বাজার সড়কের ওই সেবা ডায়গস্টিক সেন্টারে গেলে,ওখানে নিয়োজিত ডাক্তার চকরিয়া ডুলহাজারা এলাকার বাসিন্দা সাগর দে একটি সাপোজিটরি দেওয়ার পর পরই দুটি ইনজেকশন পুশ করে। এতেই ওই শিশুটি মারা যায়। এমনটাই জানিয়েছেন শিশুটির পিতা বতিরাম ত্রিপুরা।

গর্জনিয়া বাজারের এক ব্যবসায়ী জানান, সেবা ডায়গনষ্টিক সেন্টারটি পরিচালনা খুরুশকুল এলাকার মোহন দে নামক এক ব্যক্তি ডাক্তার হিসেবে চিকিৎসা সেবা প্রদানের দায়িত্ব পালন করেন,ঔষুধের ব্যবস্থা পত্রে মেডিসিন, শিশু রোগ ও সার্জারী বিশেষজ্ঞ লিখে সাগর দে।

এই বিষয়ে কথা বলতে অভিযুক্ত ডাক্তার সাগর দে’র মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় বক্তব্য সংগ্রহ করা সম্ভব হয়নি।

রামু থানার ওসি মোঃ আবুল খায়ের জানান, ডাক্তারের ভূল চিকিৎসার কারনে রোগী মারা যাওয়ার ঘটনাটি সত্য। এই ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা দায়ের করা হবে ।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।