ভূমি কমিশন শুধু বিরোধপূর্ণ ভূমি নিয়েই কাজ করবে

রাঙামাটি সার্কিট হাউজে পার্বত্য ভূমি কমিশনের সভা
রাঙামাটি সার্কিট হাউজে পার্বত্য ভূমি কমিশনের সভা
পার্বত্য ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশন আইন কার্যকর হলে ভূমি কমিশন শুধু বিরোধপূর্ণ ভূমি নিয়েই কাজ করবে। বাঙালিরা ভূমি থেকে উচ্ছেদ হবে, এমন শঙ্কাকে অমূলক ধারণা বলে মন্তব্য করেন কমিশনের চেয়ারম্যান অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি আনোয়ার উল হক। ভূমি কমিশনের আইন সংশোধিত হওয়ার পর রোববার সকালে রাঙামাটি সার্কিট হাউজে অনুষ্ঠিত সভা শেষে সাংবাদিকদের এই কথা বলেন তিনি। সকাল সাড়ে ১০টায় শুরু হওয়া সভাটি শেষ হয় দুপুরে।
সভায় প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা গওহর রিজভী,পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ চেয়ারম্যান জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা(সন্তু),রাঙামাটি সার্কেল চীফ ব্যারিস্টার দেবাশীষ রায়,বান্দরবান ও খাগড়াছড়ির মং ও বোমাং সার্কেল চীফ,সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি দীপংকর তালুকদার,শরনার্থী বিষযক টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান যতীন্দ্র লাল ত্রিপুরা, পার্বত্য সচিব নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা, রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মোঃ সামসুল আরেফিন, খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক ওয়াহিদুজ্জামান, বান্দরবান জেলা প্রশাসক দীলিপ কুমার বণিক, রাঙামাটি পুলিশ সুপার মোঃ সাঈদ তারিকুল হাসান,রাঙামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমা,খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরীসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সভায় তিনি আরো বলেন,

আমাদের মূল কাজ ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি করা, ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি সংক্রান্ত নতুন পুরাতন সকল অভিযোগ বিবেচনায় নেওয়া হবে।

DSC01162পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের চেয়ারম্যান জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা বলেন,আমরা আশা করছি এ ভূমি কমিশনের মাধ্যমে বিরাজমান ভূমির যে সমস্যা তা নিরসন হবে। সংশোধিত আইন নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। সমাধানের জন্য সরকার এগিয়ে আসছে এবং কাজ করে যাচ্ছে। কমিশনের কর্ম পরিধির উপর নির্ভর করছে সফলতা। যেহেতু সরকার এ কাজে এগিয়ে এসেছে আমরা সহযোগিতা করে যাবো। রাঙামাটি সার্কেল চীফ ব্যারিষ্টার দেবাশীষ রায় বলেন,

পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির সাথে যে বিষয়গুলো সংগতিপূর্ন রেখে অসংগতিপূর্ণ বিষয়গুলো বাদ দিয়ে সরকার কাজ শুরু করেছে। বর্তমান আইন অনুসারে আমরা ভূমি কমিশনের কাজ শুরু করবো। তিনি বলেন, এখন থেকে তিন পার্বত্য জেলায় কমিশনের শাখা অফিস করা এবং পর্যাপ্ত জনবল নিয়োগের বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে কমিশনের বৈঠকে।

এদিকে ভূমি কমিশনের সংশোধিত আইনকে বাঙালিবিদ্বেষী, কমিশনকে পক্ষপাতদুষ্ট দাবী করে এবং কমিশনে বাঙালি সদস্য বাড়ানোর দাবিতে বাঙালি সংগঠনগুলোর ডাকে তিন পার্বত্য জেলায় হরতাল ডাকা হয়। হরতালে রাঙামাটি ও খাগড়াছড়ি জেলা অচল হলেও বান্দরবানে সাড়া মেলিনি।
উল্লেখ্য, গত ১ আগস্ট পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশন আইন সংশোধিত মন্ত্রী পরিষদ সভায় নীতিগত অনুমোদন দেয়ার পর তা বাতিলের দাবি জানিয়ে আসছে পার্বত্য চট্টগ্রামে বসবাসরত বাঙ্গালী অধিকার ভিত্তিক সংগঠনগুলো।

আরও পড়ুন
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।