মন্ত্রী – প্রতিমন্ত্রীর তালিকায় নেই রাঙামাটির দীপংকর ও খাগড়াছড়ির কুজেন্দ্রের নাম

দীপংকর তালুকদার এমপি ও কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি
পার্বত্য জেলার তিন এমপির মধ্যে বান্দরবান আসনের সংসদ সদস্য বীর বাহাদুর উশৈসিংকে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের পূর্ণমন্ত্রী হিসাবে শপথ গ্রহন করার জন্য ফোন করা হলেও নতুন মন্ত্রী পরিষদের তালিকায় সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী রাঙামাটি আসনের সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার ও খাগড়াছড়ি আসনের সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরার নাম নেই । সরকারের নতুন মন্ত্রী সভায় স্থান পাওয়াদের নামের সরকারী তালিকা থেকে এই তথ্য নিশ্চিত হয়েছে পাহাড়বার্তা
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে,গত সংসদ নির্বাচনে তিনি পরাজিত হলেও একাদশ সংসদ নির্বাচনে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি সমর্থিত প্রার্থী ঊষাতন তালুকদারকে (স্বতন্ত্র) প্রায় ৫১ হাজার ২৫৩ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করে রাঙামাটি আসনে চতুর্থ বারের মত সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয় দাদা নামে খ্যাত দীপংকর তালুকদার।
৩০শে ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে দীপংকর তালুকদার মোট ভোট পেয়েছেন ১লাখ ৫৯ হাজার ২৮৯ ভোট। অন্যদিকে জেএসএস সমর্থিত নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি স্বতন্ত্র প্রার্থী ঊষাতন তালুকদার ভোট পেয়েছেন ১লাখ ৮ হাজার ৩৬ ভোট। সংসদ নির্বাচনে বিপুল ভোটে
রাঙামাটির সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন দীপংকর তালুকদার। তার জয়ে উচ্ছাসিত পার্বত্য বাসী। নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে সবাই কে চমকে দেওয়ার কারনে রাঙামাটিবাসী প্রত্যাশা ছিলো তিনি এবার মন্ত্রীত্ব পাবেন। কিন্তু মন্ত্রী পরিষদে স্থান না পাওয়ায় হতাশ রাঙামাটির মানুষ।
এবারের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পার্বত্য ৩ জেলার আসনই ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগের দখলে যাওয়ার কারনে এবার কে হবেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী, এনিয়ে জল্পনা কল্পনার শেষ নেই ৩১ ডিসেম্বর থেকে।
অন্যদিকে খাগড়াছড়ি ২৯৮ নং সংসদীয় আসনে জয় লাভ করেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা। নৌকা প্রতীকে কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা পেয়েছে ২ লাখ ৩৬ হাজার ১৫৬ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ইউপিডিএফ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী নতুন কুমার চাকমা পেয়েছে ৫৯ হাজার ২৫৭ ভোট। এছাড়া এখানে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে বিএনপির প্রার্থী শহীদুল ইসলাম ভুঁইয়া পেয়েছেন ৫১ হাজার ২৬৬ ভোট। নির্বাচনের পর থেকে খাগড়াছড়িবাসীর দাবী ছিলো খাগড়াছড়ির এই সংসদ সদস্যকে মন্ত্রী করা হোক। কিন্তু মন্ত্রী পরিষদে স্থান না পাওয়ার কারনে সংসদীয় আসনটির মানুষের মাঝে হতাশা বিরাজ করছে।

আরও পড়ুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।